মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে ১৩টি কাজ – 13 Works To Eliminate The Stench Of The Face

0

আগেই বলে নিচ্ছি কেননা আপনারা পরে ভুলে যান। বাকি বন্ধুদের সাহায্যের উদ্দেশে লাইক আর শেয়ারটা  মনে করে করে দেবেন। শুরু করছি আজকের বিষয় –


নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই chalokolkata.com এ স্বাগতম।   আশা করি সবাই আপনারা ভালোই আছেন আর  সুস্থ আছেন। বন্ধুরা আজ আমি তোমাদের এমন একটা জিনিস নিয়ে আলোচনা করবো যার সাথে আমাদের সকলের না হলেও অনেকের ক্ষেত্রে এটা খুবই লজ্জা জনক ও অনেক জায়গায় অসুবিধে তে পড়তে হয়। আর সেই জিনিস তা হল মুখের দুর্গন্ধ। এর জন্য কিন্তু একমাত্র আমরাই দায়ী। অনেক ক্ষেত্রে এমনটা দেখা গেছে যে আপনি দেখতে শুনতে অনেকটাই ভালো কিন্তু আপনার সামনে এসে কথা বলতে সবাই ভয় পায়। কাছে যেতে ভয় পায়। তার একটাই কারণ আর সেটা আর কিছু নয় আপনার মুখের দুর্গন্ধ

আমরা এমন কিছু খেলে আমাদের এই সমস্যা হয়ে থাকে যদি খাবারের পর ভালো কপরে কুলকুচি করে মুখ না ধুয়ে থাকি বা এমন অনেক খাবার আছে যা মুখ ধোবার পরেও গন্ধ যায় না। আবার অনেক সময় এমনিতেই অথবা রোগের জন্য মুখ থেকে দুর্গন্ধ ছড়ায়। এই দুর্গন্ধ মানুষকে প্নেক সময়ই বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দেয়। মুখের গন্ধের কারণে তার চারপাশের মানুষ কথা বলতে অস্বস্তি বোধ করে। আসুন তাহলে দেখেনি এই সমস্যার সমাধান কি কি আছে।

আমাদের আরও অনেক কিছু আছে যেমন – মুখের দুর্গন্ধ থেকে মুক্তির উপায়, মুখের দুর্গন্ধ চিরতরে দূর করার উপায়, মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঔষধের নাম, মুখের দুর্গন্ধ দূর করার হোমিও ঔষধ, মুখের দুর্গন্ধ দূর করার স্প্রে, মুখের দুর্গন্ধ দূর করার খাবার, মুখের দুর্গন্ধ দূর করার স্প্রে নাম, মুখের দুর্গন্ধের চিকিৎসা ইত্যাদি ইত্যাদি।

মুখের দুর্গন্ধ থেকে মুক্তির উপায় – মুখের দুর্গন্ধ চিরতরে দূর করার উপায় ——

     1. মৌরি

এতে রয়েছে অ্যান্টিবায়োটেরিয়াল প্রোপার্টিজ, যা মুখ গহ্বরে তৈরি হওয়া ব্যাকটেরিয়াগুলো মেরে ফেলে। ফলে দুর্গন্ধে বদলে যায় সুগন্ধে। যখনই মনে হবে মুখ থেকে গন্ধ বের হচ্ছে, এক মুঠো মৌরি নিয়ে চিবিয়ে নেবেন। তা হলে আর চিন্তা থাকবে না।

2. লেবুর রস

মুখের গন্ধের কারণে যদি জীবন দুর্বিষহ হয়ে ওঠে, তা হলে নিয়মিত লেবুর রস পান করুণ। বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে লেবুর অন্দরে থাকা অ্যাসিডিক কনট্যান্ট, মুখ গহ্বরে বাসা বেঁধে থাকা জীবাণুদের মেরে ফেলে। ফলে খারাপ গন্ধের প্রকোপ কমতে একেবারেই সময় লাগে না। এক্ষেত্রে এক কাপ জলে ২ চামুচ লেবুর রস ফেলে পান করতে পারেন অথবা সেই জল  দিয়ে ভালো করে কুলকুচি করে ফেলেও দিতে পারেন।

3. পুদিনাপাতা

একে প্রাকৃতিক মাউন্ট ফ্রেশনার বলা যেতে পারে। তাই মুখে গন্ধ হলে ২-৩টি পুদিনাপাতা নিয়ে চিবিয়ে ফেলুন। সাথে সাথে ফল পাবেন।

4. মাউথওয়াশ ব্যবহার

আপনি যদি মাউথওয়াশ ব্যবহার করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনার মাউথওয়াশটি লক্ষ্য করুন। এর উপাদানসমূহ ভালো করে দেখুন। অনেক মাউথওয়াশে থাকে মুখের ব্যাকটেরিয়া মারার জন্য অ্যালকোহল। যদি এই অ্যালকোহল ২৭% এর বেশি থাকে তাহলে তা অবশ্যই দেখার বিষয়। কারণ অ্যালকোহল মুখের ভেতরের স্যালাইভা শুকিয়ে ফেলে। এতে মুখে ব্যাকটেরিয়া বাড়তে থাকে কিছুক্ষণ পর থেকেই। ফলে মুখে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়।

প্রতিকারঃ মাউথওয়াশ কেনার আগে অবশ্যই অ্যালকোহলের মাত্রা দেখে কিনবেন। ২৭% এর নিচে কিনবেন। নাহলে কিনবেন না।

5. নারিকেল তেল

এই তেলে উপস্থিত অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান নিমিষে গন্ধ সৃষ্টি করা ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে। ফলে মুখের গন্ধ দূর হতে সময় লাগে না। এক্ষেত্রে এক চামুচ নারিকেল তেল মুখে নিয়ে ভালো করে কুলি করুন। কথাটা শুনলেই কমান যেন লাগেজে তাই না ? কম করে ৫ মিনিট করতে হবে। তার পর হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে মুখটা। সাথে সাথেই ফল পাবেন।

6. বেকিং সোডা

শরীরের অন্দরে অ্যাসিড লেভেল ঠিক রাখার মধ্য দিয়ে মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে বেকিং সোডা। তাই এ ধরনের সমস্যায় যদি ভুগে থাকেন, তা হলে প্রতিদিন এক গ্লাস জলে অল্প পরিমাণে বেকিং সোডা মিশিয়ে কুলকুচি করুন। দেখবেন দারুণ ফল পাবেন। এ ক্ষেত্রে বেকিং সোডা দিয়ে ব্রাশ করলেও কিন্তু একই উপকার পাওয়া যায়।

7. দারুচিনি

মুখের ভেতরে তৈরি হওয়া জীবাণু মেরে ফলতে দারুচিনির কোনো বিকল্প নেই। তাই মুখ থেকে গন্ধ বেরোলেই এক চামচ দারুচিনির পাউডারের সঙ্গে পরিমাণমতো জল মিশিয়ে গরম করে নিন। তার পর সেই জল নি ছেঁকে নিয়ে কুলকুচি করুণ। দেখবেন গন্ধ চলে যাবে।

8. ডায়েট করার ফলে

বাড়তি মেদ কমানোর জন্য অনেকে ডায়েট করে থাকেন। কার্বোহাইড্রেট একেবারে বাদ দিয়ে প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খান ডায়েটের সময়। কিন্তু প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার মুখে ব্যাকটেরিয়ার জন্ম দেয় অতি মাত্রায়। যদি আপনি প্রতিদিন উচ্চমাত্রায় প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খান তবে মুখ দুর্গন্ধ হবে। প্রতিকারঃ উচ্চমাত্রায় প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খুব বেশি খাবেন না। ফল খান। এবং শাকসবজি থেকে প্রোটিন নেয়ার চেষ্টা করুন।

9. দিনে দুই বেলা ব্রাশ করুন

দিনে দুই বেলা ব্রাশ করা দাঁতের স্বাস্থ্যকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। মুখের দুর্গন্ধ দূর করতেও দুই বেলা দাঁত ব্রাশ জরুরি। যদি এরপরও মুখে দুর্গন্ধ হয়, তাহলে বেকিং সোডা দিয়ে দাঁত ব্রাশ করতে পারেন। এটি মুখ থেকে এসিডিটি দূর করবে এবং ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি কমিয়ে দেবে।

10. এলাচ

এলাচ মুখে রেখে দিন। দেখবেন অল্প সময়ের মধ্যেই দুর্গন্ধ একেবারে কমে যাবে।

11. মেথি বীজ

এক চামুচ মেথি বীজ নিয়ে পরিমাণমতো জলের সঙ্গে মিশিয়ে চুলায় ফোটান। তার পর বীজগুলো ছেঁকে নিয়ে সেই জল চায়ের মতো পান করুন। কয়েক দিন এমনটি করলে দেখবেন মুখের গন্ধ কমে গেছে।

12. অ্যাপেল সিডার ভিনিগার

এই প্রাকৃতিক উপাদানটির অন্দরে উপস্থিত একাধিক উপাকারী উপাদান মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সকালের নাস্তা, দুপুর ও রাতে খাওয়ার আগে অল্প পরিমাণে অ্যাপেল সিডার ভিনিগার নিয়ে এক গ্লাস জলে মিশিয়ে পান করতে হবে। এমনটি করলে একদিকে যেমন স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটবে, অন্যদিকে পেটের রোগ মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার আশঙ্কাও হ্রাস পাবে।

13. লবঙ্গ

এতে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল প্রোপাটিজ, যা মুখে গন্ধ তৈরি করা ব্যাকটেরিয়াদের মেরে ফেলে। মুখে একটি লবঙ্গ নিয়ে চুসতে থাকুন। দেখবেন গন্ধ একেবারে চলে গেছে।



Leave A Reply

Your email address will not be published.