Bangla Folk Song List – বাংলা ফোক গান Lyrics

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন আপনারা আশা করি সকলেই ভালো আছেন। আছে বন্ধুরা গান টান নিশ্চই গাওয়া হয়। মানে বাঙালি যেহেতু সেহেতু একটু আধটু তো গান চর্চা আছেই কি বলেন। মানে একটু আধটু আমরা সকলেই গুন্ গুন্ করে গেয়েই থাকি। আর বাংলা ফোক গান হলে তো আর কোথায় নেই। আমরা অনেকেই শান্তিনিকেতন যাই এই ফোক গানের টানে। আর আমাদের বাউল গান তো বাঙালিদের রক্তে মিশে আছে। বাংলা গান বাউল গান সাধারণত বাউল সম্প্রদায়ের গান যা বাংলা লোকসাহিত্যের একটি বিশেষ অংশ। বাউলরা তাদের দর্শন ও মতামত বাউল গানের মধ্য দিয়ে প্রকাশ করে থাকে। বাউল মতে সতেরো শতকে জন্ম নিলেও লালন সাঁইয়ের গানের মাধ্যমে উনিশ শতক থেকে বাউল গান ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন শুরু করে। তিনিই শ্রেষ্ঠ বাউল গান রচয়িতা।  রবীন্দ্রনাথ বাউল গান দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন যা তার রচনাতে লক্ষ করা যায়। সাধারণত বাউলেরা যে সংগীত পরিবেশন করে তাকে বাউল গান বলে। বাউল গান বাউল সম্প্রদায়ের সাধনসঙ্গীত। এটি লোকসঙ্গীতের অন্তর্গত। এ গানের উদ্ভব সম্পর্কে সঠিক কোনো তথ্য জানা যায় না। আমাদের বাংলার গর্ভ ও বাংলার ঐতিহ্য হিসাবে আমরা বাংলা বাউল বা বাংলা ফোক গান কে অনেকটাই প্রাধান্য দিয়ে থাকি।

আমাদের লোকগীতি,বাউল,লালন ইত্যাদি গান গুলো কি হারিয়ে যেতে শুরু করেছে ? আধুনিক তথা অত্যাধুনিক(র‍্যাপ,হিপ হপ) গানের মাঝে আমাদের ইতিহ্যবাহী আঞ্চলিক লোকগীতি গুলো তলিয়ে যাচ্ছে। আমার কাছে আমাদের এই লোকগীতি,লালন,বাউলের অনেক অনেক গানের সংগ্রহ আছে। তাই বলে আমি কি আধুনিক না ?এক্ষেত্রে লালন ব্যান্ড। আরো নাম না জানা অনেক সংগঠন এবং কিছু শিল্পী কঠুর পরিশ্রম করে যাচ্ছে। যারা আজও তেমন সবার কাছে জনপ্রিয় না। আমরা এখন একটু দেখে নেবো বেশ কিছু বাংলার ঐতিহ্যরূপী সেই মন মাতানো পাগলকরা বাউলগান আর কিছু ফোক গানের সম্ভার।

বাংলা ফোক গান লিরিক্স – Bangla Folk Song List

1.পিরিত ভালো না সখী তরা প্রেম করিও না।

সখি তরা প্রেম করিয়ো না
পিরিত ভালো না
সখি তরা প্রেম করিয়ো না
প্রেম করছে যে জন জানে সেই জন
পিরিতেরও বেদনা
সখি তরা প্রেম করিয়ো নাপ্রেম করে ভাসল সাগরে
অনেকে পাইলো না কুল
জগত জুড়ে বাজে শুনি
পিরিতের কলঙ্কের ঢোল
দিতে গিয়ে প্রেমের মাশুল
মান কুলমান থাকেনা
সখি তরা প্রেম করিয়ো নাপিরিত পিরিত সবাই বলে
পিরিতি সামান্য নয়
কলঙ্ক অলঙ্কার করে
দুখের বোঝা বইতে হয়
কাম হতে হয় প্রেমের উদয়
প্রেম হইলে কাম থাকেনা
সখি তরা প্রেম করিয়ো না
পিরিত ভালো না
সখি তরা প্রেম করিয়ো নাপ্রেমিকের প্রেম পরশে শুদ্ধ প্রেমের উদয়
প্রেমিক যে জন সেই মহাজন
না থাকে তাঁর লজ্জা ভয়
বাউল আব্দুল করিমে কয়
ও প্রেমিকে বুঝেনাসখি তরা প্রেম করিয়ো না
পিরিত ভালো না
সখি তরা প্রেম করিয়ো না
প্রেম করছে যে জন জানে সেই জন
পিরিতেরও বেদনা
সখি তরা প্রেম করিয়ো না

2.আমি তোমার নাম লইয়া কান্দি

সোনা বন্ধুরে, আমি তোমার নাম লইয়া কান্দি
গগণেতে ডাকে দেয়া আসমান হইল আন্ধিরে বন্ধু
আমি তোমার নাম লইয়া কান্দি

তোমার বাড়ি আমার বাড়ি মধ্যে সুরো নদী
সেই নদীকে মনে হইলো অকুল জলধি রে বন্ধু
আমি তোমার নাম লইয়া কান্দি

গগণেতে ডাকে দেয়া আসমান হইল আন্ধিরে বন্ধু
আমি তোমার নাম লইয়া কান্দি

উইড়া যায় রে ছকুয়ার পঙ্খী
পইড়া রইলো ছায়া
কোন পরাণে বিদেশ হইলা
ভুলি দ্যেশের মায়া রে বন্ধু
আমি তোমার নাম লইয়া কান্দি।।

3.কে যাসরে

কে যাস রে ভাটি গাঙ বাইয়া
আমার ভাইধন রে কইয়ো, নাইওর নিতো বইলা
তোরা কে যাস কে যাস…।।

বছর খানি ঘুইরা গেল, গেল রে
ভাইয়ের দেখা পাইলাম না, পাইলাম না

কইলজা আমার পুইড়া গেল, গেল রে
ভাইয়ের দেখা পাইলাম না, পাইলাম না
ছিলাম রে কতই আশা লইয়া
ভাই না আইলো গেল গেল, রথের মেলা চইলা
তোরা কে যাস কে যাস……

প্রাণ কান্দে , কান্দে
প্রান কান্দে কান্দে প্রান কান্দে রে, প্রান কান্দে
নয়ন ঝরে ঝরে নয়ন ঝরে রে, নয়ন ঝরে
পোড়া মনরে বুঝাইলে বুঝে না
কান্দে কান্দে প্রান কান্দে

সুজন মাঝিরে ভাইরে কইয়ো গিয়া
না আসিলে স্বপনেতে দেখা দিত বইলা
তোরা কে যাস কে যাস……

সিঁন্দুরিয়া মেঘ উইড়া আইলো রে
ভাইয়ের খবর আনলো না, আনলো না
ভাটির চরে নৌকা ফিরা আইলো রে
ভাইয়ের খবর আনলো না, আনলো না

নির্দয় বিধি রে তুমিই সদয় হইয়া
ভাইরে আইনো নইলে আমার পরান যাবে জ্বইলা
তোরা কে যাস কে যাস……

কে যাস রে ভাটি গাঙ বাইয়া
আমার ভাইধন রে কইয়ো, নাইওর নিতো বইলা
তোরা কে যাস কে যাস। 

4.ইচ্ছা করে

সোনা বন্ধে আমারে পাগল করিল।
আরে না জানি কি মন্ত্র করি জাদু করিল।।

কবে ক’নে হইল আমার তার সংগে দেখা
অংশীদার নাইরে তার সে তো হয় একা ।।

রূপের ঝলক দেখিয়া তার আমি হইলাম ফানা
সেই অবধি লাগল আমার শ্যাম পিরিতির টানা।।

হাসন রাজা হইল পাগল লোকের হইল জানা
নাচে নাচে পালায় পালায় আর গায় গানা।।

মুখ চাইয়া হাসে আমার যত আরি পরী
দেখিয়াছি বন্ধের রূপ ভুলিতে না পারি।।

7.হার কালা

আমার হাড় কালা করলাম রে
আমার দেহ কালার লাইগা রে
আরে আমার অন্তর কালা করলাম রে
দুরন্ত পরবাসে

মন রে, ওরে হাইলা লোকের লাঙ্গল বাঁকা
জনম বাঁকা চাঁদরে জনম বাঁকা চাঁদ।

হায়রে, তার চাইতে অধিক বাঁকা
আমি যারে দিসি প্রাণরে, দুরন্ত পরবাসে।।

(ওরে) মন রে, আরে কূল বাঁকা গাঙ বাঁকা
বাঁকা গাঙের পানি রে, বাঁকা গাঙের পানি
আরে, সকল বাঁকায় বাইলাম নৌকা
তবু বাঁকা রে না জানি রে, দুরন্ত পরবাসে।।

(ওরে) মন রে, ওরে হাড় হইল জড় জড়
অন্তর হইল গুড়া রে, আমার অন্তর হইল গুড়া
পিড়িতি ভাঙ্গিয়া গেলে, নাহি লাগে জোড়া রে
দুরন্ত পরবাসে।।

8.মিলন হবে কত দিনে

মিলন হবে কত দিনে
আমার মনের মানুষের সনে।।
চাতক প্রায় অহর্নিশি
চেয়ে আছি কালো শশী
হব বলে চরণ-দাসী,
ও তা হয় না কপাল-গুণে।।
মেঘের বিদ্যুৎ মেঘেই যেমন
লুকালে না পাই অন্বেষণ,
কালারে হারায়ে তেমন
ঐ রূপ হেরি এ দর্পণে।।
যখন ও-রূপ স্মরণ হয়,
থাকে না লোক-লজ্জার ভয়-
লালন ফকির ভেবে বলে সদাই
(ঐ) প্রেম যে করে সে জানে।।

9.লীলাবালি লীলাবালি

লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে

মাথা চাইয়া টিকা দিমু
জড়োয়া লাগাইয়া সই গো
জড়োয়া লাগাইয়া সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
নাক চাইয়া নাকফুল দিমু
পান্না লাগাইয়া সই গো
পান্না লাগাইয়া সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে

কান চাইয়া পাশা দিমু
মতিয়া লাগাইয়া সইগো
মতিয়া লাগাইয়া সইগো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
গলা চাইয়া হার দিমু
হিরা লাগাইয়া সইগো
হিরা লাগাইয়া সইগো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে

হাত চাইয়া বালা দিমু
সোনা লাগাইয়া সইগো
সোনা লাগাইয়া সইগো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
কোমর চাইয়া বিছা দিমু
রুপা লাগাইয়া সইগো
রুপা লাগাইয়া সইগো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে

পাও চাইয়া পাঝর দিমু
ঘুঙ্গর ও লাগাইয়া সইগো
ঘুঙ্গর ও লাগাইয়া সইগো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
পিন্দন চাইয়া শাড়ি দিমু
ওড়না লাগাইয়া সই গো
ওড়না লাগাইয়া সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে

আইছৈন লীলাবালী থমকি থমকি
বইছৈন লীলাবালী ভালা গো
না জানি কুন তামশে লীলাবালী
না জানি কুন ইস্কে লীলাবালী
ঘুন ঘুন সদা মাতৈন গো
নাকর কেশরী কানের পাশা
বইছৈন লীলাবালী ভালা গো
মাথার শিতাপাটি গায়ের উড়না
বইছৈন লীলাবালী ভালা গো
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে
লীলাবালি লীলাবালি
বড় যুবতী সই গো
বড় যুবতী সই গো
কি দিয়া সাজাইমু তোরে

10.বন্ধু বিনে প্রাণ বাঁচে না

আমি রবনা রবনা গৃহে
বন্ধু বিনে প্রাণ বাঁচে না।।

বন্ধু আমার চিকন কালা
নয়নে লাইগাছে ভালা
বিষম কালা ধইলে ছাড়ে না।।

বন্ধু বিনে নাইযে গতি
কিবা দিবা কিবা রাতি
জ্বলছে আগুন আর তো নিভে না।।

এমন সুন্দর পাখি
হৃদয়ে হৃদয়ে রাখি
ছুটলে পাখি ধরা দেবে না।।

হাতে আছে স্বরমধু
গৃহে আছে কুলবধূ
কী মধু খাওয়াইল জানি না।।

ভাইবে রাধারমণ বলে
প্রেমানলে অঙ্গ জ্বলে
জ্বলছে আগুন আর তো নিভে না।।

11.তোমায় হৃদ মাঝারে রাখিব
12.লাল পাহাড়ের দেশে যা

লাল পাহাড়ের দেশে যা
রাঙ্গামটির দেশে যা
ইত্থাক তুকে মানাইছে না রে
ইক্কেবারে মানাইছে না রে

লাল পাহাড়ি দেশে যাবি
হাঁড়ি আর মাদল পাবি
মেয়ে মরদের আদর পাবি রে
ও নাগর… ও নাগর…
ইক্কেবারে মানাইছে না রে

লাল পাহাড়ি দেশে যা
রাঙ্গামটির দেশে যা
ইত্থাক তুকে মানাইছে না রে
ইক্কেবারে মানাইছে না রে

নদীর ধারে শিমুলের ফুল
নানা পাখির বাসা রে নানা পাখির বাসা
সকালে ফুটিবে ফুল মনে ছিল আশা রে
এমন ছিল আশা

তুই ভালোবেসে গেলি চলে
কেমন বাপের ব্যাটা রে তুই কেমন ব্যাটা?
লাল পাহাড়ি দেশে যা
রাঙ্গামটির দেশে যা
ইত্থাক তুকে মানাইছে না রে
ইক্কেবারে মানাইছে না রে

ভাদর মাসে ভাদু পূজা
ভাদু গানের ঘটা
ঐ কালো মেয়েটার মন মজেছে
গলায় দিব মালা রে
তার গলায় দিব মালা

তুই মরবি তো মরে যা
ইকেবারে মরে যা মরবি তো মরে যা
ইকেবারে মরে যা
ইত্থাক তুকে মানাইছে না রে
ও নাগর… ও নাগর…
ইক্কেবারে মানাইছে না রে

13.সোহাগ চাঁদ 

সোহাগ চাঁদ বদনী ধ্বনি
নাচো তো দেখি
বালা নাচো তো দেখি
বালা নাচো তো দেখি

নাচেন ভাল সুন্দরী এই
বাঁধেন ভাল চুল
হেলিয়া দুলিয়া পরে
নাগ কেশরের ফুল

রুনু ঝুনু নুপুর বাজে
ঠুমুক ঠুমুক তালে
রুনু ঝুনু নুপুর বাজে
নয়নে নয়ন মেলিয়া গেল
শরমের রঙ লাগে গালে

যেমনি নাচে নাগর কানাই
তেমনি নাচে রাই
নাচিয়া ভুলাও তো দেখি
নাগর কানাই

14. গুরু না ভজি মুই 

গুরু না ভজি মই সন্ধ্যা সকালে
মন প্রান দিয়া রে
গুরু না ভজি মই সন্ধ্যা সকালে
মন প্রান দিয়া রে
ফুরাইয়া গেল মোর সাধেরই জনম
ফুরাইয়া গেল মোর সাধেরই জনম
আপনও কর্ম দোষে রে
প্রানের বান্ধব রে, দাও দেখা দয়া করে
প্রানের বান্ধব রে, দাও দেখা দয়া করে

আসিতে হবে মোর বারে বারে
এইনা ভবের মাঝারে
আসিতে হবে মোর বারে বারে
এইনা ভবের মাঝারে
আরনা হবে মোর মানব জনম
আরনা হবে মোর মানব জনম
পাষাণে ভাঙ্গিলে মাথারে
প্রানের বান্ধব রে, দাও দেখা দয়া করে
প্রানের বান্ধব রে, দাও দেখা দয়া করে
যাহারও লাগিয়া খাটিয়া মরি লু
সেত ভুলিয়া যাবেরে
যাহারও লাগিয়া খাটিয়া মরি লু
সেত ভুলিয়া যাবেরে
প্রাণ পাখি মোর পলকে উরিবে
প্রাণ পাখি মোর পলকে উরিবে
ছারিয়া সকল মায়ারে
প্রানের বান্ধব রে, দাও দেখা দয়া করে
প্রানের বান্ধব রে, দাও দেখা দয়া করে

 

15.ইষ্টিশনের রেল গাড়িটা

ইষ্টিশনের রেল গাড়িটা
মাইপা চলে ঘড়ির কাটা
ইষ্টিশনের রেল গাড়িটা
মাইপা চলে ঘড়ির কাটা
প্লাটফর্মে বইসা ভাবি
কখন বাজে ১২টা, কখন বাজে ১২টা
কখন বাজে ১২টা, কখন বাজে ১২টা

যখন ছাড়ে থামেনা রে
ভারী জংশন ধরেনা রে
যখন ছাড়ে থামেনা রে
ভারী জংশন ধরেনা রে
জরিমানা হইয়া যাইবো
যদি টানো চেনটা যদি টানো চেনটা
যদি টানো চেনটা যদি টানো চেনটা
ইষ্টিশনের রেল গাড়িটা
মাইপা চলে ঘড়ির কাটা
ইষ্টিশনের রেল গাড়িটা
মাইপা চলে ঘড়ির কাটা
প্লাটফর্মে বইসা ভাবি
কখন বাজে ১২টা কখন বাজে ১২টা
কখন বাজে ১২টা কখন বাজে ১২টা

গাড়ির টিটি বরই কড়া
টিকিট ছাড়া পড়লে ধরা
গাড়ির টিটি বরই কড়া
টিকিট ছাড়া পড়লে ধরা
লাল ঘরে দেয় পাঠাইয়া
মুবিল কোটের কেসটা মুবিল কোটের কেসটা
মুবিল কোটের কেসটা মুবিল কোটের কেসটা
ইষ্টিশনের রেল গাড়িটা
মাইপা চলে ঘড়ির কাটা
ইষ্টিশনের রেল গাড়িটা
মাইপা চলে ঘড়ির কাটা
প্লাটফর্মে বইসা ভাবি
কখন বাজে ১২টা, কখন বাজে ১২টা
কখন বাজে ১২টা, কখন বাজে ১২টা
কখন বাজে ১২টা, কখন বাজে ১২টা
কখন বাজে ১২টা, কখন বাজে ১২টা

Comments are closed.