জেনে নিন ডিমের খোসার কয়েকটি আশ্চর্য গুণাগুণ

আপনি কী জানেন ডিমের খোসার কয়েকটি আশ্চর্য গুণাগুণ ? তাহলে আসুন জেনে নেয়া যাক যে একটি ডিমের খোসা আমাদের কি কি কাজে লাগে। ডিমের খোসার মতো এমন অনেক জিনিস আছে যেগুলো আমরা ব্যবহার করতে জানি না যার ফলে আমরা সেগুলো এক মিনিট এ ফেলে দি।  সাথে খুব সংক্ষেপে আলোচনা করবো যে একটি বা আমাদের ফেলে দেওয়া ডিমের খোসা দিয়ে কি কি করা যেতে পারে।

নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই chalokolkata.com এ স্বাগতম। আশা করি সবাই আপনারা ভালোই আছেন আর  সুস্থ আছেন।  

ডিম প্রায় সবারই প্রিয় খাবার। পুষ্টিগুণে ভরপুর ডিম (Egg) যেমন স্বাস্থ্যকর, তেমনি রান্নার মতো করে করলে এর স্বাদ এর জুড়ি নেই। তেমনি আবার  এর খোসাও খুবই উপকারী ! আজ্ঞে হ্যা আপনি ঠিকই পড়ছেন ডিমের খোসাও খুবই উপকারী আসুন জেনে নেওয়া যাক, ডিমের খোসা কয়েকটি আশ্চর্য গুণাগুণ সম্পর্কে…

আরও পড়ুন – ডিম খেয়ে ১৪ দিনে কমিয়ে ফেলুন ১০ কেজি ওজন

1.  ডিম খুব উপকারি একটি খাবার। ডিমের কুসুম ও ডিমের সাদা অংশেরই ভিন্ন ভিন্ন বিশেষত্ত্ব রয়েছে। শুধু যে স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি তাই নয়, চুলের যত্নের এমনকি ত্বকের জন্যও ডিম বিশেষ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু ডিমের ফেলে দেয়া খোসারও কিন্তু উপকারিতা রয়েছে। সে সম্পর্কে জেনে নিন-

2.  ১টা ডিমের সাদা অংশের সঙ্গে একটা বা দু’টো ডিমের খোসা ভাল করে গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। এ বার ওই প্যাক মুখে ১৫ মিনিট মতো লাগিয়ে রেখে উষ্ণ জল দিয়ে আলতো ঘষে ধুয়ে ফেলুন! এতে ত্বকের(Skin)কালচে ভাব কেটে যাবে। ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল, প্রাণবন্ত! এই প্যাক নিয়মিত ব্যবহার করতে পারলে (সপ্তাহে ২ বারের বেশি নয়), ব্রণর সমস্যা থেকেও মুক্তি পাওয়া সম্ভব!

3. অনেক সময় রান্নাঘরের সিঙ্কে বা বেসিনের পাইপে ময়লা জমে জল যাওয়ার পথ বন্ধ হয়ে যায়। এ ক্ষেত্রে ডিমের খোসা খুব মিহি করে গুঁড়ো করে সিঙ্কে বা বেসিনের ছাঁকনির মধ্যে দিয়ে দিন। তারপর বেশি করে জল ঢেলে দিন। দেখবেন পাইপের ময়লা অনেকটাই পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে।

4. বাসন মাজার জন্যও ডিমের সাদা অংশ খুবই উপকারি। বাসন ধোয়ার সাবানের সঙ্গে ডিমের খোসার গুঁড়ো মিশিয়ে নিলে বাসন অনেক বেশি ঝকঝকে হবে। আর খুব সহজেই বাসন পত্র পরিষ্কার হয়ে যাবে।

 

5. গাঁটের ব্যথা বা জয়েন্ট পেইন কমাতে একটি পাত্রে অ্যাপল সিডার ভিনিগারের সঙ্গে একটা গোটা ডিমের খোসা(Egg shell) ভাল করে গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। এটাকে অন্তত ২-৩ দিন রেখে দিলে দেখবেন, ডিমের খোসাগুলো ভিনিগারের সঙ্গে একেবারে মিশে গেছে। এই মিশ্রণ দিয়ে ব্যথার জায়গায় আলতো করে চাপ দিয়ে মালিশ(Massage) করুন। ডিমের খোসায় থাকে কোলাজেন, গ্লুকোসামিন, হায়ালুরোনিক অ্যাসিড যা ভিনিগারের সঙ্গে মিশে ব্যথা(Pain) কমাতে সাহায্য করে।

6. সাদা কাপড় পড়তে সকলেই খুব ভালো লাগে। আবার দেখতে খুবই ভালো লাগে। সাদা কাপড় পড়া বা সামলে চলা খুবই কষ্টকর। সাদা কাপড়ে কোনো দাগ লাগলে ডিমের খোসার গুঁড়ো ও ডিটার্জেন্ট এক সঙ্গে মিশিয়ে এর মধ্যে ডুবিয়ে রাখতে পারেন। তাহলে সাদা কাপড়ের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে।

7. বাসন পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহার করুন ডিমের খোসা। বাসনের পোড়া, চটচটে দাগ খুব সহজেই উঠে যাবে।

8.  কফির তিক্ত ভাব কমাতে কফির সঙ্গে ডিমের খোসার গুঁড়ো এক চিমটে মিশিয়ে দিন। কফি(Coffee) গুলিয়ে নেওয়ার পর একটু সময় দিন। ডিমের খোসার গুঁড়ো থিতিয়ে নীচে পড়ে যাবে আর কফির তিক্ত স্বাদও অনেকটাই কমে যাবে।

9.  সাধের ফুলের বাগানে বার বার পোকার উপদ্রবে গাছ নষ্ট হচ্ছে? গাছের গোড়ায় ডিমের খোসা(Egg shell) গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। পোকা-মাকড় গাছের ধারে কাছেও ঘেঁষবে না।

10. বৃক্ষ রোপন, গাছ লাগান, গাছ বাঁচান, এগুলো নিয়ে নানা রকম আলোচনা হয়ে থাকে। আপনি বাড়িতে বৃক্ষ রোপন করতে চাইলে সেক্ষেত্রেও ডিমের খোসা খুবই উপকারে আসবে। ডিম ভাঙার সময় মাঝ বরাবর ভাঙতে হবে। এর ভাঙা অংশ নিয়ে এর মধ্যে মাটি দিতে হবে। তারপর মাটিতে ছোট চারা গাছ রোপন করতে পারেন। সেই গাছ আস্তে আস্তে বড় হবে। আবার ডিমের খোসায় মাটির সঙ্গে একটু সারও দিয়ে দিলে গাছটি আরো বেশি বাড়বে।

11. ডিমের খোসায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম আর মিনারেল যা বাগানের মাটির উর্বরতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। ডিমের খোসা গুঁড়ো করে বাগানের মাটির সঙ্গে মিশিয়ে নিন। ফল পাবেন হাতেনাতে।

Comments are closed.