জেনে নিন গ্রহ দোষ কাটাতে কি ধারণ করবেন

নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই chalokolkata.com এ স্বাগতম। আশা করি সবাই আপনারা ভালোই আছেন আর  সুস্থ আছেন। বন্ধুরা আমাদের জীবন নানা সমস্যায় ভরা। যেমন, গ্রহ শুভ ও অশুভ প্রভাব বিস্তার করে, তেমনই অশুভ বাস্তুর প্রভাবেও জীবনে উন্নতি ও বাধার সৃষ্টি হয়। মানব জীবনে বাধা কাটাতে জ্যোতিষীরা রত্ন ধারণের পরামর্শ দিয়ে থাকেন। কিন্তু রত্ন ধারণের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কিছু সময়কাল এবং নিয়মাবলী অবলম্বন করা জরুরি। তা না হলে রত্ন ধারণে উপযুক্ত ফল মেলে না। যেমন, কোন রত্ন কোন আঙুলে ধরণ করলে উপযুক্ত ফল মিলবে, এ বিষয়ে জ্যোতিষশাস্ত্রে নির্দিষ্ট কিছু নিয়মাবলী বা নির্দেশ রয়েছে। আসুন সেগুলি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

কোন রত্ন কোন আঙুলে ধরণ করলে উপযুক্ত ফল মিলবে, এ বিষয়ে জ্যোতিষশাস্ত্রে কিছু নির্দিষ্ট নির্দেশ রয়েছে।আসুন সেগুলি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক…

দুই হাতের আটটি আঙুলেই গ্রহরত্ন ধারণ করা যায়, একমাত্র বৃদ্ধাঙ্গুল বাদে। প্রত্যেকটি আঙুলের সঙ্গে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গের মধ্যে যোগসূত্র আছে বিভিন্ন নার্ভের দ্বারা। তাই আঙুলে রত্ন ধারণ করলে সবচেয়ে বেশি কাজ দেয়

আমাদের জীবন নানা সমস্যায় ভরা। যেমন, গ্রহ শুভ ও অশুভ প্রভাব বিস্তার করে, তেমনই অশুভ বাস্তুর প্রভাবেও জীবনে উন্নতি ও বাধার সৃষ্টি হয়। মানব জীবনে বাধা কাটাতে জ্যোতিষীরা রত্ন ধারণের পরামর্শ দিয়ে থাকেন। কিন্তু রত্ন ধারণের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কিছু সময়কাল এবং নিয়মাবলী অবলম্বন করা জরুরি। তা না হলে রত্ন ধারণে উপযুক্ত ফল মেলে না। যেমন, কোন রত্ন কোন আঙুলে ধরণ করলে উপযুক্ত ফল মিলবে, এ বিষয়ে জ্যোতিষশাস্ত্রে নির্দিষ্ট কিছু নিয়মাবলী বা নির্দেশ রয়েছে। আসুন সেগুলি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

1. রবি

রবির রত্ন অনামিকাতে বা তর্জনীতে ধারণীয়।.

2. চন্দ্র

অনামিকা বা কনিষ্ঠাতে ধারণ করবেন।

3. মঙ্গল

অনামিকা বা তর্জনীতে ধারণ করবেন।

4. বুধ

কনিষ্ঠা বা মধ্যমাতে ধারণ করবেন।

5. বৃহস্পতি

তর্জনী বা অনামিকাতে ধারণ করবেন।

6. শুক্র

কনিষ্ঠ বা মধ্যমাতে ধারণ করবেন।

7. শনি

মধ্যমাতে ধারণ করবেন।

8. নীলা

মধ্যমা আঙ্গুলে ধারণ করবেন।

9. হীরা

কনিষ্ঠা বা অনামিকায় ধারণ করবেন।

10. চুনি

অনামিকা বা তর্জনীতে।

11. পাণ্ণা

কনিষ্ঠা বা অনামিকায় ধারণ করবেন।

12. পোখরাজ

তর্জনী বা অনামিকায়।

13. মুনস্টোন

অনামিকায় ধারণ করবেন।

14. প্রবাল

তর্জনী বা অনামিকায়।

15.` মুক্তা

অনামিকা বা কনিষ্ঠায়।

তর্জনী

তর্জনীর সঙ্গে যোগসূত্র আছে রেসপিরেটরি সিস্টেম ও স্টম্যাকের।

মধ্যমা

মধ্যমার সঙ্গে যোগসূত্র আছে অন্ত্র বা ইনটেস্টাইন, মাইণ্ড বা ব্রেনের।

অনামিকা

অনামিকার সঙ্গে যোগসূত্র আছে হার্ট, কিডনি, স্টম্যাক, ডাইজেস্টিভ সিস্টেম, ব্লাড সার্কুলেশন, রিপ্রোডাক্টিভ অর্গান (একটি বিশেষ নার্ভ যার নাম ভেনা এমোরিস। এর সঙ্গে অনামিকা আঙুল ও হার্টের যোগসূত্র আছে তাই বিয়েতে এনগেজমেন্ট রিং বা ইটারনিটি রিং এই আঙুলেই পড়ানো হয়, এই নার্ভের পোশাকি নাম ভেইন অফ লাভ)।

কনিষ্ঠা

কনিষ্ঠার সঙ্গে যোগসূত্র রয়েছে প্রাইভেট পার্টস, লেগস, এবং শরীরের নিম্নাংশের।

কোন রত্ন কোন আঙুলেঃ-

তর্জনী

তর্জনীতে ধারণ করা উচিত ইয়োলো স্যাফায়ার, টোপাজ, মুনস্টোন, হোয়াইট পার্ল ইত্যাদি।

মধ্যমা

মধ্যমায় ধারণ করা উচিত নীলা, হীরা, গোমেদ ইত্যাদি।

অনামিকা

অনামিকায় ধারণ করা উচিত চুনী, লাল পলা, ক্যাটস আই ইত্যাদি।

কনিষ্ঠা

কনিষ্ঠায় ধারণ করা উচিত ক্যাটস আই, পাণ্ণা, হীরা ইত্যাদি।

শেষ কথা 

আঙুলে রত্ন ধারণ সম্ভব না হলে তা বাহুতে বা গলায় ধারণ করা যায় তবে তার এফেক্ট খুব কম হয়। বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে আঙুল পরিবর্তন করা যায়। আবারবিশেষ কিছু রত্ন ডান হাতের আঙুলে আবার বিশেষ কিছু রত্ন বাঁ হাতের আঙুলে ধারণ করতে হয়। যেটাই করবেন না কোনো একটু জেনে নিয়ে করলে আয়নার ভালো হবে। নিজে থেকে হুট্ করে পাকামি করে  পাল্টাতে যাবেন না এতে ক্ষতি হতে পারে।

Comments are closed.