আন্তর্জাতিক পিকনিক দিবস -International Picnic Day Quotes

১৮ জুন প্রতি বছর পালিত হয় আন্তর্জাতিক পিকনিক ডে। গত দশ বছরেরও বেশি সময় ধরে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক পিকনিক ডে। কোনও কোনও দেশে এই দিনে পাবলিক হলিডে। বন্ধুরা আজ আমরা জেনে নেবো যে বছরে মাণো একটা  আসে যেটা কিনা পিকনিক ডে পালন করা হয়, না না শুধু আমাদের দেশে না সারা বিশ্বে পালন করা হয়ে থাকে। তাই তো এর নাম আন্তর্জাতিক পিকনিক ডে ( International Picnic Day )

নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই chalokolkata.com এ স্বাগতম। আশা করি সবাই আপনারা ভালোই আছেন আর  সুস্থ আছেন।  

দিবসটি কবে থেকে শুরু হলো, কারা শুরু করল- সেটা জানা যায়নি। তবে কেউ কেউ মনে করেন, ফরাসিরাই এর উদ্যোক্তা। ফরাসি বিপ্লবের আগে বড় পার্কগুলোয় সাধারণ মানুষ ঢুকতে পারত না। ফরাসি বিপ্লবের পর সাধারণ মানুষের জন্য প্রথমবারের মতো পার্কগুলো খুলে দেওয়া হয়। আর মানুষজন তখন পার্কে গিয়ে খোয়া দাওয়া করতো, মজা করত। ‘পিকনিক’ শব্দের উৎপত্তিও কিন্তু ফরাসি ভাষা থেকে।

বনভোজন সাধারণত পরিবারের সদস্যদের ঘিরে হয়ে থাকে। অন্যান্য ক্ষেত্রে দুজন ব্যক্তি থেকে শুরু করে প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে এটি বড় ধরনের মিলনস্থলে রূপান্তরিত হয়। সাধারণত বনভোজনে যাত্রাকালীন কিংবা ফিরে আসার সময় আনন্দ, হাসি-তামাশা ইত্যাদি বিষয়াবলি থাকে। নির্দিষ্ট স্থানে রান্না আয়োজনের মধ্যবর্তী সময়কালে অথবা ভোজন পরবর্তী সময়ে খেলাধুলার আয়োজন করা হয়। এ ছাড়া অংশগ্রহণকারীদের নির্মল আনন্দ দেওয়ার ব্যবস্থা রাখা হয়।

এই সময় জীবন যাপন – International Picnic Day 2020

করোনা আবহেই পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক পিকনিক ডে। জানেন কি, প্রতি বছর ১৮ জুন পালিত হয় আন্তর্জাতিক পিকনিক ডে। তবে করোনার কারণে এই বছর পছন্দসই খাবার প্যাক করে কাছেপিঠে কোথাও বেরিয়ে পড়া যাবে না। অনেকে মিলে একসঙ্গে হইহুল্লোড়ও করা যাবে না। তবু কী ভাবে কাটাবেন আজকে দিনটা? রইল তার কয়েকটা টিপস।

চলছে আনলক ফেজ ওয়ান। কঠোর লকডাউন না চললেও নিছক পিকনিক করতে বন্ধুবান্ধব-আত্মীয়স্বজন নিয়ে বেরিয়ে পড়া যাবে না। তবু আজকের দিনটা একেবারে নষ্ট হতে দেওয়াও ঠিক না। তাই এই বছর একটু অন্য ভাবে কাটানো যাবে পিকনিক দিবস।

আমাদের দেশে অবশ্য এই বর্ষাকালের ভ্যাপসা গরমে পিকনিকের চল নেই বিশেষ। শীতের মিঠে রোদ গায়ে লাগিয়ে চড়ুইভাতিতে মেতে ওঠা এই বছর সম্ভব হবে কিনা জানা নেই। গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক পিকনিক ডে (International Picnic Day)। কোনও কোনও দেশে এই দিনটা পাবলিক হলিডে হিসেবেও ঘোষিত।

* আপনার বাড়ির সঙ্গে লন বা ছাদে বাগান থাকলে সেখানেই পিকনিকের আয়োজন করতে পারেন। খাবার প্যাক করে নিয়ে পরিবারের সঙ্গে সেখানেই কাটাতে পারেন কিছুটা সময়।

  • বন্ধুদের সঙ্গে আজ কিছুটা সময় অনলাইনে আড্ডা মারুন। একসঙ্গে আপনারা স্কুল-কলেজ জীবনে কেমন পিকনিক করেছেন, সেই সব পুরনো কথা ফিরে আসতে পারে। দেখবেন মন অনেক তরতাজা লাগছে।
  • পরিবারের লোকেদের সঙ্গে কোনও ইনডোর গেম খেলে সময় কাটাতে পারেন। সঙ্গে থাক পছন্দমতো খাওয়া দাওয়া।
  • নিজে একটা সাইকেল নিয়ে কাছাকাছি একটু ফাঁকা জায়গা থেকে ঘুরে আসতে পারেন। অবশ্যই মাস্ক পরে বেরোবেন এবং ভিড় এড়িয়ে থাকবেন। খোলা আকাশের নীচে নিজের সঙ্গে কিছুটা সময় কাটাতে পারলে ভালো লাগবে।

Comments are closed.