দীর্ঘদিন ধরে ধূমপানের ফলে ঠোঁট কালচে হয়ে গিয়েছে? জেনে নিন কী করবেন

আগেই বলে নিচ্ছি কেননা আপনারা পরে ভুলে যান। বাকি বন্ধুদের সাহায্যের উদ্দেশে লাইক আর শেয়ারটা  মনে করে করে দেবেন। শুরু করছি আজকের বিষয় –


নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই chalokolkata.com এ স্বাগতম। আশা করি সবাই আপনারা ভালোই আছেন আর  সুস্থ আছেন। বন্ধুরা আজ আমি আপনাদের জানাবো এক দারুন জিনিস যেটা নিয়ে ছেলেদের সাথে সাথে মেয়েরাও পাল্লা দিয়ে জানার জন্য আগ্রহী। আর সেটা হল ধূমপানের ফলে ঠোঁট কালচে হয়ে গিয়েছে এটার জন্য 100% উপকারী টোটকা আপনাদের জানাবো যাতে করে একদম ঠিক হয়ে যায়।  তাহলে চলুন আমরা চট করে দেখে নি ব্যাপারগুলো।

 বন্ধুরা সত্যি কথা বলতে কি ধূমপান যে স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর, সে কথা সকলেই জানেন। ধূমপানের অভ্যাসের ফলে শ্বাসনালী বা ফুসফুসের মারাত্মক ক্ষতির সঙ্গে সঙ্গে আরআর নানা রকম জটিল রোগ শরীরে বাসা বাঁধে। ধূমপানের অভ্যাসের ফলে আর একটা সমস্যাআর দেখা দেয়। সেটা হল ঠোঁট কালো হয়ে  যায় । যারা ধূমপান করেন তাদের বেশির ভাগেরই ঠোঁটে কালচে ছোপ পড়ে যায়। আসুন এ বার জেনে নেওয়া যাক ঠোঁটের এই কালচে দাগ দূর করার কয়েকটি সহজ ঘরোয়া কৌশল…

আজকাল অনেক সমীক্ষাতেই দেখা গিয়েছে পুরুষদের তুলনায় মহিলা ধূমপায়ীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। না না না আশ্চর্যের কোনো ব্যাপার না।  সত্যি কথা বলতে বিশ্বাস করুন আমি মুম্বাই এ থাকা কালীন দেখি মেয়েরা সিগরেট খাচ্ছে। দেখেতো আমি হা করে তাকিয়ে ছিলাম। ফোন করে মা বাবাকেও বলেছিলাম যে – জানো  মা এখানে মেয়েরাও সিগরেট খায় যদিও ২০০৭ সালের কথা। ওমা এখন আমার নিজের বান্ধবীরাও খায় মানে ওই র কি ব্যাপারটা সব সমান সন্মান হয়ে গেছে। মানে এইসব কোনো ব্যাপারনা এখন। কিন্তু একটা ব্যাপারটা আছে বস। আর সেটা হল যে ছেলেরা একটু মেনে নিলেও কোনো মেয়ে মানতেই পারবে না যে তার ঠোঁট কালো বা কালো হচ্ছে এই ধূমপানের জন্য। কিন্তু কি আর করা যাবে  আপনি তো আর ধূমপান ছাড়তে পারবেন না কেননা আপনি ওটার এডিক্টেড হয়ে গেছেন। তাই আমি আজকে পান্ডের উদ্দেশে বলবো কিছু অম্নোন টোটকা যাতে করে আপনি ধূমপান করলেও ঠোঁট থাকবে একদম কমলা লেবুর মতোই। আসুন সেটাই দেখা যাক।

চেন স্মোকার যে কেবল ছেলেরাই হতে পারেন, এই ধারনার আমূল বদল এসেছে। হালফিলে দেখা যায় বহু মহিলাই চেন স্মোকার। ধূমপান যে স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর এ কথা টেলিভিশন থেকে শুরু করে বড়পর্দায় সিনেমা শুরুর আগে, কিংবা সিগারেটের প্যাকেটেও লেখা থাকে। তবে সিগারেট খাওয়া যে ত্বকের জন্যও বেশ ক্ষতিকর সে কথা হয়তো অনেকেরই জানা নেই। সিগারেটে থাকা তামাক অর্থাত্‍ নিকোটিনের প্রভাবে ঠোঁট কালো হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। এছাড়াও নানা কারণে ট্যান পড়ে ঠোঁট কালচে হয়ে যেতে পারে।

তাই কালচে ঠোঁটের হাত থেকে নিস্তার পেতে মেনে চলুন বেশকিছু  ঘরোয়া উপায়

লেবু এবং মধু

ঠোঁটে স্ক্রাব করার জন্য চিনির পরিবর্তে লেবুর রসের সঙ্গে অল্প মধুও মিশিয়ে নেওয়া যেতে পারে। এর ফলে ঠোঁটে একটা আলাদা জেল্লা আসে। বিশেষ করে শীতকালে ধূমপায়ীদের জন্য এটা ভীষণ প্রয়োজনীয় ঘরোয়া টোটকা। যার ফলে ঠোঁট ময়শ্চারাইজড থাকে। ফলে শুষ্ক এবং রুক্ষ ভাব কমে এবং ঠোঁট কম ফাটে। আজি করে দেখুন

চিনি এবং মধু

ঠোঁটে কাচলচে ছোপ পড়ে গেলে সেটা তোলার চটজলদি উপায় হল চিনি এবং মধুর প্রলেপ লাগানো। এক্ষেত্রেও স্ক্রাবারের কাজ করে চিনি। আর ঠোঁটের উজ্জ্বলতা বাড়াতে মধু হল দারুণ উপকারী। এর সঙ্গে দু-এক ফোঁটা অলিভ অয়েলও মিশিয়ে নিতে পারেন। আমন্ড অয়েলও ঠোঁটের কালচে ভাব দূর করার জন্য খুবই কাজের জিনিস। আজি করে দেখুন

গ্লিসারিন

ঠোঁট ফাটা এবং কালচে ভাব দূর করতে গ্লিসারিনের খুবই প্রয়োজনীয়। প্রয়োজনে গ্লিসারিনের সঙ্গে পাতি লেবুর রস মিশিয়ে নিতে পারেন। তাহলে ঠোঁট অনেক বেশী উজ্জ্বল হবে। আজি করে দেখুন

কাঁচা দুধ

যেকোনও রকম ট্যান বা কালচে দাগ-ছোপ তুলতে কাঁচা দুধ বা দুগ্ধজাত যেকোনও প্রোডাক্ট খুবই উপকারী। তাই কালচে ঠোঁটের উপর দুধ বা দই লাগালে সহজেই উজ্জ্বলতা ফিরে পাওয়া সম্ভব। আজি করে দেখুন

টমেটোর রস

একফালি টমেটোর রস ঠোঁটে মাখলে সহজেই ফিরে পাওয়া যাবে জেল্লা। পাশাপাশি নরম থাকবে ঠোঁটের চামড়া। সম্ভব হলে দিনে দু’বার ঠোঁটে টোমেটোর রস লাগান। তাহলে বন্ধুরা প্রতিদিন অন্তত দু’বার করে টমেটোর রস ঠোঁটে মাখুন। এতে আপনার ঠোঁট উজ্জ্বল হবে।আজি করে দেখুন

মধু, চিনি আর বাদামের তেল

মধু, চিনি আর বাদামের তেল একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এ বার এই মিশ্রণটি দিয়ে নিয়মিত ঠোঁটে মালিশ করুন। এই মিশ্রণ আপনার ঠোঁটের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে তার কোমলতাও বাড়াবে। আজি করে দেখুন

পাতি লেবু আর চিনি

পাতি লেবুর সঙ্গে অল্প চিনি মিশিয়ে ঠোঁটের উপর পুরু করে লাগিয়ে রাখুন। এক্ষেত্রে চিনি মূলত স্ক্রাবারের কাজ করে। ঠোঁটের উপর দের্ঘদিন ধরে জমে থাকা ডেড সেল বা মরা কোষগুলো এর সাহায্যে সরে যায়। আর পাতি লেবুর কাজ হল ঠোঁটকে উজ্জ্বল করে তোলা। কিভাবে করবেন –  পাতি লেবুর পাতলা একটি টুকরোর উপরে খানিকটা চিনি ছড়িয়ে দিয়ে রোজ ঠোঁটে মালিশ করুন। চিনি এখানে স্ক্র্যাবারের কাজ করে। চিনি ঠোঁটের মরা চামড়াগুলোকে ঘষে তুলে দিতে সাহায্য করে আর লেবু ঠোঁটের কালো হয়ে যাওয়া চামড়াকে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। আজি করে দেখুন

পাতি লেবুর রস আর গ্লিসারিন

পাতি লেবুর রসের সঙ্গে খানিকটা গ্লিসারিন মিশিয়ে প্রতিদিন অন্তত দু’বার করে ঠোঁটে মাখুন। দিন দশেকের মধ্যেই ফারাক চোখে পড়বে। আজি করে দেখুন

চিনি আর মধু

মধুর আর চিনির সঙ্গে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল মিশিয়ে মিনিট দশেক আলতো ভাবে ঠোঁটে মাখুন। এই মিশ্রণ আপনার ঠোঁটকে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। আজি করে দেখুন

দুধ বা টক দই

ঠোঁটকে উজ্জ্বল করতে ল্যাক্টিক অ্যাসিড খুবই উপকারী। দুধ বা টক দইয়ে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ল্যাক্টিক অ্যাসিড। দুধ বা টক দই তুলোয় নিয়ে প্রতিদিন অন্তত দু’বার করে ঠোঁটে মালিশ করুন। এটি ঠোঁটের মরা চামড়াগুলোকে ঘষে তুলে দিতে সাহায্য করে। একই সঙ্গে ঠোঁটের কালচে ভাব দূর করতেও সাহায্য করে। আজি করে দেখুন



Comments are closed.