গায়ের দুর্গন্ধ দূর করার উপায়, জেনে নিন সেই সেই খাবারের নাম

আগেই বলে নিচ্ছি কেননা আপনারা পরে ভুলে যান। বাকি বন্ধুদের সাহায্যের উদ্দেশে লাইক আর শেয়ারটা  মনে করে করে দেবেন। শুরু করছি আজকের বিষয় –


নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই chalokolkata.com এ স্বাগতম। আশা করি সবাই আপনারা ভালোই আছেন আর  সুস্থ আছেন। বন্ধুরা আজ আমি আপনাদের গায়ের দুর্গন্ধ নিয়ে আলোচনা করবো। যাদের যাদের এই সমস্যা আছে সত্যি তাদের অনেক জায়গায় গিয়ে অনেক লজ্জায় পড়তে হয়। আর সত্যি কথা বলতে অনেকে আছেন যারাএকটু  পয় পরিস্কার ভাবে থাকে তাও যেন বাজে গন্ধ শরীর থেকে  যায় না। আর তাছাড়া  আমরা আরও জন্য যে –  বগলের অতিরিক্ত ঘাম দূর করার উপায়, শরীরের দুর্গন্ধ কিভাবে দূর করা যায়, শরীরের দুর্গন্ধ দূর করার কয়েকটি সহজ উপায়, মুখের দুর্গন্ধ দূর করার উপায়, চুলের গন্ধ দূর করার উপায়

পুরুষাঙ্গের গন্ধ দূর করার উপায়, পায়খানার গন্ধ দূর করার উপায়, নাকের দুর্গন্ধ দূর করার উপায় ইত্যাদি ইত্যাদি এই সমস্ত কিছু আমরা এক এক করে জানবো। তবে চলুন আজ তাহলে জন্য যে আমাদের শরীরের বা গায়ের দুর্গন্ধ কিভাবে দূর করা যায় বা কি কি খাবার আছে যার ফলে আমাদের সমস্যার সমাধান হবে।

বর্তমান এ এখন এখন আমরা সবাই কম বেশি শীত এ কাঁপছি। হ্যা মানে এখন ঠান্ডা। কিন্তু এখন থেকেই আমি ভাবছি যে গরমে আপনাদের কথা।  কেননা সত্যি কথা বলতে আমাদের রাজ্যে অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গে শীত বা জেক ঠান্ডা কাল বলি আমরা সেটা খুব বেশি হলে ২ মাস। তাই আমি এখন থেকেই শুরু করেছি ভাবা শুধু মাত্র আপনাদের জন্য।

গরম কালে ভ্যাপসা গরমে প্রায় সকলেরই হাঁসফাঁস অবস্থা থাকে ! প্যাচপ্যাচে গরমে রাস্তাঘাটে ভিড় বাসে, ট্রামে ঘামের দুর্গন্ধে ওঠা দায়। গুমোট আবহাওয়ায় শরীরে এত বেশি ঘাম হয় যে, মাঝে মাঝে এই ঘামের দুর্গন্ধ অসহ্যকর হয়ে ওঠে। ভিড় ট্রামে, বাসে ঝুলতে ঝুলতে ঘেমে-নেয়ে অফিসে পৌঁছালেও ঘামের দুর্গন্ধের চোটে অস্বস্তিকর অবস্থায় পড়তে হয় অনেককেই। তবে কারও কারও শরীরে ঘামে যেন একটু বেশিই দুর্গন্ধ হয়। বাজার চলতি নানা রকম বডিস্প্রে, রোল অন জাতীয় সুগন্ধি ব্যবহার করেও খুব বেশি ক্ষণ নিশ্চিন্তে থাকা যায় না। তবে দৈনন্দিন খাদ্যাভ্যাসে সামান্য কিছু পরিবর্তন আনতে পারলে সহজেই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। আসুন এ বিষয়ে সবিস্তারে জেনে নেওয়া যাক…

1. পেঁয়াজের মতো রসুনেও রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে সালফার জাতিয় উপাদান যা শরীরে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে। রসুনে থাকা সালফার উপাদান রক্তে মেশে যা শরীরে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে। এই দুর্গন্ধই লোমকূপ এবং নিঃশ্বাসের সঙ্গে নির্গত হয়। তাই শরীরের মাত্রাতিরিক্ত দুর্গন্ধ দূর করতে রসুন কম খাওয়াই ভাল।

2. জিরে বা ওই জাতিয় মশলাযুক্ত খাবার যতটা সম্ভব কম খান। কারণ, জিরে বা ওই জাতিয় মশলা শরীরে সালফার জাতিয় গ্যাস সৃষ্টি করে যা লোমকূপ এবং নিঃশ্বাসের সঙ্গে নির্গত হয়। ফলে শরীরে দুর্গন্ধও হয় বেশি।

3. অতিরিক্ত মাত্রা দুধ বা দুগ্ধজাত খাবার খেলে এর মধ্যে থাকা উপাদানগুলি ভেঙে হাইড্রোজেন সালফাইড এবং মিথাইল মারক্যাপশন তৈরি হয়। এই হাইড্রোজেন সালফাইড এবং মিথাইল মারক্যাপশন শরীরে দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে। তাই উপকারী হলেও দুধ বা দুগ্ধজাত খাবার অতিরিক্ত মাত্রায় না খাওয়াই ভাল।

4. পেঁয়াজের মধ্যে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে সালফার জাতিয় উপাদান যা শরীরে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে। পেঁয়াজ শরীরের পক্ষেও উপকারী। তাই শরীরের মাত্রাতিরিক্ত দুর্গন্ধ দূর করতে পেঁয়াজ কম খাওয়াই ভাল।

কথা বলতে গেলে আটকে যায় ? আপনি কি তোতলামোর সমস্যায় ভুগজেন এই ৬টি ব্যায়াম করুন রোজ

5. অ্যালকোহল শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর, এ কথা অমরা সকলেই জানি। যাঁরা অতিরিক্ত মাত্রায় অ্যালকোহল খান, তাঁদের ঘামের সঙ্গে আর মুখের থেকে দুর্গন্ধ বের হয়।

7. অতিরিক্ত মাত্রায় শর্করাজাতীয় খাবার খেলে তা রক্তে ‘কিটোন বডি’ তৈরি করে যা শরীরে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে।

শেষ কথা 

শেষ কথা বলতে একটু আপনাদের কিছু কথা বলার আছে আমার। সেটা হলো এমন অনেক মানুষ আছেন যাদের সব সময় গায়ে একটা বাজে গন্ধ থাকে তার মানে কিন্তু একদমই তারা যে নোংরা তা কিন্তু নয়। শরীরের অনেক কিছুর জন্য এটা হতে পারে। কখনো তাদের বাজে ভাবে কিছু বলা বা টিটকিরি করা এইসব করবেন না। তাতে তারা খুব কষ্ট পায়। ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।



Comments are closed.