করলার জুস বানানোর নিয়ম

0

নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই পেজ chalokolkata.com  এ স্বাগতম। আমি  সব সময় চেষ্টা করে থাকি আপনাদের প্রতি নিয়ত চাহিদা বা জানকারী দেবার। আপনাদের যদি কোনো রকম অন্য কিছু বিষয়ে জানার থাকে যে কোনো বিষয়ে …তাহলে আমাকে কমেন্ট বাক্স এ জিজ্ঞাসা করতে পারেন আমি যথাসাদ্ধ চেষ্টা করবো আপনাদের সাহায্য করার। আমরা আজ জেনে নেবো যে – করলার জুস তৈরির রেসিপি ও উপকারিতা। কাঁচা করলার কি কি উপকার অর্থাৎ কাঁচা করলা খেলে কি কি উপকার পাবেন। ঘাবড়ানোর কিছুই হয়নি আর ওরে বাবারে বলার কিছু নেই। তবে হ্যা এটা সত্যি ব্যাপারটা একটু ভয়ানক ব্যাপার। তবে মানুষ অভ্যাসের দাস। চেষ্টা করলে কি না পারে। দেখে নেওয়া যাক তাহলে।


করলার জুস তৈরির রেসিপি ও উপকারিতা

কয়েকটি করলা নিয়ে টুকরো করে কেটে নিন অতপর বিচিগুলো ফেলে দিন এবার করলার টুকরা গুলো ব্লেন্ডারে, পরিমান মত লবণ ও জল দিয়ে ব্লেন্ড করুন এখন ছাকনি দিয়ে ছেকে নিন, হয়ে গেল মহাতিতা করলার জুস।
বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ- তিতা কমাতে ও পুষ্টিগুণ আরো বাড়াতে এক চামচ মধু মেশাতে পারেন

উপকারিতা 

নিয়মিত এই তিতা করলার জুস খাওয়ার অভ্যাস করলে নানান রকমের রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়-
করলা রক্তকে বিশুদ্ধ করে
ডায়াবেটিকস কন্ট্রোল করে করলার জুস
দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে
সর্দি,কাশি, জ্বর থেকে মুক্তি পাওয়া যায়
বার্ধক্য ঠেকিয়ে রাখে
করলা উচ্চ রক্তচাপ কমায়
ক্রিমিনাশক হিসাবে করলা কাজ করে

ক্যান্সাররোধী হিসাবে কাজ করে
কোষ্ঠ কাঠিন্য দূর করে
করলা ত্বকচুল ভালো রাখে

নিয়মিতভাবে সকালে এক গ্লাস করলার জুস খান ও সুস্থ্য সুন্দর জীবন যাপনসহ ক্যান্সারকে চিরতরে বিদায় জানান



Leave A Reply

Your email address will not be published.