বমি এবং বমিবমি ভাব প্রতিরোধ, বমি বমি ভাব দূর করার উপায় – Vomiting Treatment Home Remedies

নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই পেজ chalokolkata.com  এ স্বাগতম। আজ আমি  আমাদের সবার জন্য একটা দারুন টপিক নিয়ে যেটা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে চলার পথে প্রত্যেকদিনের সমুক্ষিন হতেই হয়।  না এখানে হয়তো সবার রোজ রোজ হয়না তবে ব্যাপারটা বেশির ভাগই হয়ে থাকে। সেটা হল বমি বা বমি হওয়া আমাদের জানতে হবে যে  – সবসময় বমি বমি ভাব কেন লাগে, আমাদের দেশে বা অনেক এমন জায়গা আছে যে ছেলেদের থাকে মেয়েরা বেশি বমি করে থাকে। মেয়ের মেয়েদের বমি বমি ভাব কেন হয়,  শারীরিক অসুস্থতার কারণে মাঝে মাঝে হয় সেটা আলাদা ব্যাপার কিন্তু সবসময় এই বমি বমি ভাব হওয়ার কারণ কি, আমাদের জানতে হবে যে বমি বন্ধ করার ঔষধ এর নাম, বমি প্রতিরোধের উপায়, গর্ভকালীন বমি বন্ধ করার উপায়, বমি বন্ধ করার দোয়া ইত্যাদি ইত্যাদি। এই বিষয়ে আমার নিজস্ব একটা বক্তব্য আছে যে কোনো অনেক মেয়েরা বাস বা ট্রেন বা যে কোনো গাড়িতে উঠতেই চায় না তার একটাই কট্রন যে তাদের উঠলেই ২০০ মিটার গেলেই বমি হয়ে যায়।  কিন্তু কেন এরকম হয় আজকে এই সব নিয়েই আমাদের আলোচনা।


সংক্ষেপে 

কোনো মাদক দ্রব্য গ্রহণ করে বা যে কোনো নেশা গ্রস্থ পানিও গ্রহণ করে বমি করা সেটা সম্পূর্ণ আলাদা ব্যাপার। এর থেকে মুক্তির একটাই উপায় যে আপনি তৎক্ষণাৎ যে কোনো নেশা হোক বা কোনো পানিও যেটা আপনাকে কষ্ট দিয়ে থাকে বা আপনি গ্রহণ করে হজম করতে পারেন না সেই জিনিস গ্রহণ করা বন্ধ করে দিন। না হলে বমি কুরুন।

আমাদের অনেক সময় তেমন কোন কারণ ছাড়াই বমি বমি ভাব লাগে। আবার অনেকের ভ্রমণের সময়, যেটা আমি একটু আগেই বললাম যে গাড়িতে বা যে কোনো বাহন এ উঠলেই বমি হয়ে থাকে। ঘুরতে বা ভ্রমণে তো আর পায়ে হেটে যাওয়া যায় না। তার জন্য বাহন বা গাড়ি ঘোরাতে চড়েই যেতে হয়। এছাড়াও মাথা ব্যথা হওয়ার, বদ হজমের কারণে বমি বমি ভাব হয়ে থাকে। এই অনুভূতিটা খুবই অস্বস্তিকর। বমি বমি ভাব লাগার সাধারণ কিছু কারণ আছে, মূলত এই কারণগুলোতে বমি বমি ভাব হয়ে থাকে।

কারণ ( Cause )

আমি আগেও বলেছি যে এই বমি বমি ভাব টা কিছু লোকের মানুষিক, আবার কিছু লোকের শারীরিক অসুস্থতার জন্য, আবার কিছু লোকের নেশাগ্রস্থ হবার জন্য এছাড়াও, অতিরিক্ত ক্লান্তি, যেকোন শারীরিক ব্যথা, বদহজম, গতি অসুস্থতা বা মোশন সিকনেস, মাইগ্রেইনের ব্যথা, অতিরিক্ত ধূমপান ইত্যাদি ইত্যাদি জন্যও হয়ে থাকে ।

উপায় বা পতিরোধ ( way or Prevent )

আমাদের বাড়িতে সবার একটা করে রান্নাঘর আছে। আর আমাদের এই রান্না ঘরেই আছে এমন কিছু উপকারী জিনিস জেতার সম্পর্খে আমরা অনেকেই জানিই না। হ্যা বন্ধুরা আমাদের রান্না ঘরেই আছে অনেক টুকিটাকি জিনিস যা দিয়ে এই বমি বমি ভাব দূর করা সম্ভব। এক্ষেত্রে বেশি বাড়াবাড়ি হলে ডাক্তারের কাছে যেতেই হবে। তবে আপনি আমার কৌশল টি এক দুবার ব্যবহার করে দেখতে পারেন আর কিছু না হোক ক্ষতি একদমই হবে না। জেনে নেওয়া যাক কি সেই সব জিনিস –

গোটা জিরা (Cumin Seed)

গোটা জিরা এমন একটি উপাদান যা আপনার বমি বমি ভাব নিমিষে দূর করে দেবে । এক কাজ করবেন খানিক কিছুটা পরিমাণ গোটা জিরা নিয়ে  গুঁড়ো করে নিন, তারপর সেটি খেয়ে ফেলুন। এক সেকেন্ডে আপনার বমি বমি ভাব দূর হয়ে যাবে। চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

লেবু (Lemon)

বমি বমি ভাব কমাতে খুব সহজ এবং সস্তা একটি উপায় হল লেবু। এক টুকরো লেবু মুখে নিয়ে কিছুক্ষণ মুখে নিয়ে চুষে নিন। এছাড়া এক গ্লাস জলে এক টুকরো লেবুর রস, এক চিমটি লবণ গুলিয়ে পান করুন। এটি দ্রুত বমি বমি ভাব দূর করে দেবে । এক টুকরো লেবু নাকের কাছে নিয়ে কিছুক্ষণ শুঁকে দেখতে পারেন, এটিও আপনার খারাপ লাগা কমিয়ে দেবে বা বমিও বমি ভাব তাও অনেকটাই কমিয়ে দেবে।

আদা(Ginger)

তাড়াতাড়ি বমি বমি ভাব দূর করতে আদা বেশ কার্যকরীএকটি উপাদান। এক টুকরা আদা ভালো করে চোকলা ছাড়িয়ে ধুয়ে আপনি আপনার চায়ের সাথেওয়ান করুন, এটাকে আমরা আদ্রাক চা ও বলে থাকি , এটি দ্রুত বমি বমি ভাব দূর করে দেবে। আদা হজমের সমস্যা দূর করে পাকস্থলিতে একটি শীতল অনুভূতি প্রদান করে থাকে। ১ টেবিল চামচ আদার রস, ১ টেবিল চামচ লেবুর রস এবং ১/৪ টেবিল চাচম বেকিং সোডা মিশিয়ে খান এটিও বমি বমিভাব দূর করতে সাহায্য করবে।

ভাতের জল (Rice Water)

আপনি শুনে চমকে উঠবেন যে ভাতের জল আবার কি জিনিস। হ্যা বন্ধুরা ভাতের জল আপনার বমি বমি ভাব দ্রুত দূর করে থাকে। যেটা করবেন আপনি এক কাপ জলে কিছু চাল দিয়েই ১৫-২০ মিনিট সিদ্ধ করে নিন। এবার একটি ছোট কোনো পাত্রে জল ছেঁকে নিন এবং এটি আস্তে আস্তে পান করুন। উপকার পাবেন।

লবঙ্গ (Cloves)

গরম মসলার এক অন্যতম জিনিস হলো এই লবঙ্গ। আর এই লবঙ্গ আমাদের সবার রান্না ঘরে কম বেশি থাকেই। ১ চা চামচ লবঙ্গের গুঁড়ো ১ কাপ জলে ৫ মিনিট সিদ্ধ করুন। ঠান্ডা হয়ে গেলে আস্তে আস্তে এটি পান করুন। আপনার যদি এর স্বাদ কটু লাগে তবে এর সাথে ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে নিন। এছাড়া ১-২ টি লবঙ্গ কিছুক্ষণ চিবান, এটি সাথে সাথে বমি বমি ভাব দূর করে দেবে।

শেষ কথা 

কোনো জিনিসই আমাদের ফেলনা নয়। শুধু দরকার আজতু বিশ্বাস আর অনেকটা ভরসা। তারপর শেষ রাস্তা তো আছেই। তবে আমাদের একটু মাঝে মাঝে নিজে থেকেও কিছু শেখ বা করে নেওয়া দরকার। ভালোম লাগলে শেয়ার করুন ,আর সঙ্গে থাকুন। অনেক ভালো থাকুন। ধন্যবাদ।



Comments are closed.