খুজলি রোগের চিকিৎসা – Khujali Disease Treatment

নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে আমার এই পেজ এ স্বাগতম। আমি  সব সময় চেষ্টা করে থাকি আপনাদের প্রতি নিয়ত চাহিদা বা জানকারী দেবার। আমার বিষয় অনেক কিছু নিয়ে আজ আমি প্রথম বার বলছি আপনাদের যদি আপনাদের কোনো রকম অন্য কিছু জানার থাকে বা বোঝার থাকে সরাসরি আমাকে কমেন্ট বা মেসেজ  কেননা এটা আমার কাছে সরাসরি আসে আমি সরাসরি দেখতে পারি। আর আমি কথা দিচ্ছি আপনাদের যত টপিক থাকবে বা যত টপিক আপনাদের জানার ইচ্ছা থাকবে আমি ১০০% চেষ্টা করবো আপনাদের সাহায্য করতে।


বন্ধুরা গরম যখন  দিন দিন বাড়ছে তখন বেশ কিছু ত্বকের সমস্যা থেকে দূরে থাকার সহজ উপায় না জেনে নিলে কিন্তু মুশকিল। প্রত্যেক দিন গরম কম হওয়া তো অনেক দূরের কথা এমন সময় ঘামের প্রকোপে আমাদের শরীরে বেশ কিছু ফাঙ্গাস এসে বাসা বাঁধে। যাদের করণে দাদ-হাজা চুলকানির মতো কষ্টকর ত্বকের রোগ হওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পায়। তাই সাবধান ! প্রশ্ন করতেই পারেন কীভাবে এই কাজটি করবেন, তাই তো ? এই উত্তর পাবেন। তবে তার আগে জেনে নেওয়া ভাল যে রিং ওয়ার্ম বা দাদ ঠিক কী জিনিস ! চিকিৎসা পরিভাষায় ডার্মাটোফাইটোসিস নামে পরিচিত এই রোগ মূলত কিছু ফাঙ্গাসের কারণে হয়ে থাকে। এমন রোগ সাধারণত শরীরের যে কোনও অংশে হতে পারে। তবে নখ, ত্বক এবং স্কাল্পে বেশি হতে দেখা যায়। প্রসঙ্গত, এই রোগটি ছোঁয়াচে। তাই বাড়ির কারও হলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসা শুরু করা উচিত। না হলে অল্প দিনেই বাকি সদস্য়দেরও এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বহুগুণে বৃদ্ধি পায়। এখন আমাদের প্রতিদিন জীবনে চলার পথে জামা কাপড়ের আর প্যাচপ্যাচে গরমের জন্য কিছু কিছু জাগায় বেশ চুলকানি হয়ে থাকে। সেটা যে সব সময় দাঁদ বা হাজা হবে তার কোনো কারণ নেই। অন্য কোনো এলার্জির জন্য চুলকানি হতে পারে। কিন্তু আজ আমি আপনাদের বলবো দাঁদ হাজা বা চুলকানি হলে কি কি করণীয় –

রসুন

বন্ধুরা রসুন এ  রয়েছে অ্যাজুইনা নামে এক ধরনের প্রাকৃতিক অ্যান্টি-ফাঙ্গাল উপাদান, যা যে কোনো ধরনের ফাঙ্গাল ইনফেকশন কমাতে দারুন কাজে লাগে। তাই তো রিং ওয়ার্মের বা দাঁদেড় ক্ষেত্রেও এই সবজিটি দারুন উপকারে লাগে। এক্ষেত্রে আপনার যেটা করণীয় সেটা হল অল্প করে রসুনের কোয়া নিয়ে সেগুলিকে ছোট ছোট করে কেটে নিন। তারপর সেগুলিকে দাদের উপর রাখুন এবং ব্যান্ডেজ দিয়ে বেঁধে দিন। এমনটা সারা রাত রাখলেই দেখবেন ফল পেতে শুরু করেছেন। প্রসঙ্গত, রসুনের কোয়ার পেস্ট বানিয়ে ক্ষত স্থানে লাগালেও সমান উপকার পাওয়া যায়। আজকেই করে দেখুন ফল পাবেন আশা করি।

নারকেল তেল

হ্যা বন্ধুরা একেবারে ঠিক শুনেছেন। এই প্রাকৃতিক তেলটিও দাদের প্রকোপ কমাতে দারুন উপকারে লাগে। আসলে এই তেলটিতে এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা এমন ধরনের ত্বকের রোগ সারাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে আপনার যেটা করণীয় সেটা হল কীভাবে ব্যবহার করতে হবে নারকেল তেলকে সেটা আমাদের আগে জানা দরকার ? রাতে শুতে যাওয়ার আগে যে জায়গায় দাদ হয়েছে সেখানে অল্প করে নারকেল তেল লাগিয়ে শুয়ে পরুন। সকালে উঠে জয়গাটা ধুয়ে দিন। এমনটা কয়েকদিন করলেই দেখবেন ফল পেতে শুরু করেছেন। আজকেই করে দেখুন ফল পাবেন আশা করি।

হলুদ

বন্ধুরা হলুদ এ রয়েছে বিপুল মাত্রায় অ্যান্টি-বায়োটিক প্রপাটিজ, যা এই ধরনের সংক্রমণের প্রকোপ কমাতে দারুন কাজে আসে। এক্ষেত্রে  যেটা করবেন প্রথমে অল্প করে হলুদ জল বানিয়ে নিন। তারপর তাতে তুলে চুবিয়ে যে যে জায়গায় দাদ হয়েছে, সেখানে আলতে করে লাগাতে থাকুন। প্রসঙ্গত, দিনে কমে করে ৩ বার এমনটা করলে রোগ সেরে যেতে শুরু করবে দেখবেন।

অ্যাপেল সিডার ভিনিগার

বন্ধুরা আপেল সিডার ভিনিগার যদিও সবার বাড়িতে থাকে না বা থাকার কথাও না। এটা একটু বাজার থেকে কিনে নিতে হবে। য়তারপর যেটা করবেন সেটা হল একটা ছোট পাত্রে অল্প করে অ্যাপেল সিডার ভিনিগার নিন প্রথমে। তারপর তাতে তুলো ভিজিয়ে ক্ষত স্থান পরিষ্কার করুন। এমনটা দিনে কয়েক বার করলেই দেখবেন সমস্যা কমতে শুরু করে দিয়েছে। আসলে বিশেষ ধরনের এই ভিনিগারটিতে অ্যান্টি-ফাঙ্গাল প্রপাটিজ রয়েছে, যা এমন ধরনের সংক্রমণ কমাতে দারুন কাজে আসে।

সরষে বীজ

আকারে ক্ষুদ্র হলে কী হবে। এমন ধরনের রোগের প্রকোপ কমাতে সরষে বীজের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। পরিমাণ মতো সরষে বীজ নিয়ে কম করে ৩০ মিনিট জলে ভিজিয়ে রাখুন। সময় হয়ে গেলে সরষে বীজগুলো সংগ্রহ করে বেটে নিন। তারপর সেই পেস্টটা ক্ষত স্থানে লাগান। এমনটা কয়েক দিন করলেই মিলবে সুরাহা।

ভিনিগার আর নুন

 

ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে শুধু নয়, ফাঙ্গাল ইনফেকশনের মতো রোগের প্রকোপ কমাতেও এই প্রকৃতিক উপাদানটি দারুন কাজে আসে। এক্ষেত্রে রাতে শুতে যাওয়ার আগে অ্যালোভেরা পাতা থেকে পরিমাণ মতো জেল সংগ্রহ করে দাদের উপর সরাসরি লাগাতে হবে। সারা রাত রেখে পর দিন সকালে ধুয়ে ফলতে হবে। প্রতিদিন এই ঘরোয়া চিকিৎসাটি করলে অল্প দিনেই দেখবেন রোগ সেরে গেছে।



Comments are closed.