যুবশ্রী প্রকল্প, যুবশ্রী প্রকল্প রচনা

0

Yuvashree Prakalpa সরকারের দ্বারা জারিত একটি প্রকল্প। যা সমাজের বেকার যুবকদের কথা মাথায় রেখে চালু করা হয়। ২০১৩ সালে এই Prakalp চালু করেছিলেন রাজ্য সরকার। এই প্রকল্পের উদ্দেশ্যে হল বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদান করা।

নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক ভালোবাসা ও স্বাগতম আমার এই পেজ এ। আশা করবো আমার প্রত্যেক লেখা আপনাদের অনেকটাই উপকার করতে সাহায্য করবে ও আশা করবো ভালো লাগবে আপনাদের। আপনাদের সকলের সুস্থতা কামনা করি। আজকে আমি আমাদের রাজ্যের একটি বিশেষ প্রকল্প যেটা যুবশ্রী প্রকল্প নামে পরিচিত সেটার ব্যাপারে বলবো।

যুবশ্রী অর্পণ প্রকল্পের সুবিধে – যুবশ্রী প্রকল্প কবে চালু হয়

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গে বেকার যুবক জন্য প্রতি মাসে ১৫০০ টাকা ভাতা দেওয়া চালু আছে। এর জন্য এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্ক এ আপনার নাম নথিভুক্ত থাকতে হবে। এবার বেকার দের আরো স্বনির্ভর করার লক্ষ্যে মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ৬ মার্চ ২০১৯ সূচনা করলেন যুবশ্রী অর্পণ প্রকল্প। এই প্রকল্প অনুযায়ী প্রতি বছর রাজ্যে ৫০০০০ হাজার যুবক যুবতী দের জন্য , মাথা পিছু ১ লক্ষ টাকা করে আর্থিক সহায়তা করবে। এই টাকা দিয়া ওই যুবক বা যুবতী ব্যবস্যাবাণিজ্য বা শিল্প উদ্যোগ করে স্বনির্ভর হতে পারবে।

প্রকল্পের বৈশিষ্ট গুলি কি কি ?

এই যুবশ্রী অর্পণ প্রকল্পের অনেকগুলি বৈশিষ্ট আছে যেগুলি নিম্নরূপ।
1. যুবক বা যুবতীকে পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।
2. যুবক বা যুবতীর বয়স ১৮ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যেও হতে হবে।
3. বার্ষিক পারিবারিক আয় ৮ লক্ষ্যের মধ্যে থাকলে এই প্রকল্পে নির্বাচিত হবেন।
4. এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্ক এ নাম নথিভুক্ত থাকলে এবং আই. টি.আই বা এই ধরনের কারিগরি শিক্ষা থাকলে এই প্রকল্পে অগ্রাধিকার পাবেন।
5. এই প্রকল্পের অধীনে সহায়তার জন্য ক্ষুদ্র ,ছোট , মাঝারি উদ্যোগ এবং বস্ত্র দপ্তর প্রতি বছর ৫০০০০ হাজার রাজ্যের যুবক যুবতীদের বাছাই করে সাহায্য করবে।
6. রাজ্যের যুবক যুবতীদের মাথা পিছু ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত সাহায্য করা হবে।
7. উৎপাদনমূলক , পরিষেবামূলক বা নুতুন ব্যবস্যাসহ যেকোনো স্বনিযুক্তি প্রকল্প এই যুবশ্রী অর্পণ প্রকল্পের সহায়তা প্রদান এর ক্ষেত্রে বিবেচিত হবে।
8. প্রকল্পটি ক্ষুদ্র,ছোট ,মাঝারি উদ্যোগ ও বস্ত্র দপ্তর ,পশ্চিমবঙ্গ সরকার দ্বারা বাস্তবায়িত করা হবে।

প্রকল্প আবেদন করার পদ্ধতি কি ?

এই প্রকল্পে আবেদন করার জন্য আপনি ক্ষুদ্র ছোট মাঝারি শিল্প দপ্তরে যোগাযোগ করতে পারেন। এখনো পর্যন্ত অনলাইন আবেদন পদ্ধতি বা কোনোরূপ ফর্ম দপ্তর থেকে দেওয়া হয়নি। তবে সূত্র অনুযায়ী ১ এপ্রিল ২০১৯ থেকে এই প্রকল্পে আবেদন করা যাবে বলে শোনা যাচ্ছে। ক্ষুদ্র ছোট মাঝারি শিল্প দপ্তরে গিয়ে আপনারা বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। এছাড়া [email protected] এই আই ডি তে মেইল করে প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন বা কিছু প্রশ্ন থাকলে করতে পারবেন।

এই Prakalpa এর Apply করার সময় নিম্নলিখিত Documents প্রয়োজন হবে।

  • উচ্চ মাধ্যমিকের রেজাল্টের জেরক্স কপি
  • অন্যান্য শিক্ষাগত সার্টিফিকেট
  • ভোটার আই কার্ড (Voter ID Card)
  • প্যান কার্ড (Pan Card) 
  • Bank Account Details ( পাস বুকের প্রথম পৃষ্ঠার কপি)

বি.দ্র 

প্রশাসনের অন্দরে এক শ্রেণির অফিসার সরকারি প্রকল্পগুলির নিবিড় বাস্তবায়নে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলে মুখ্যমন্ত্রী একটি নতুন কমিটি গড়ে দিয়েছেন। প্রকল্পে নজরদারির পাশাপাশি সেই সম্পর্কে মানুষের অভিযোগও শুনবে ওই কমিটি। তার জন্য টোল-ফ্রি নম্বর ১৮০০-৩৪৫-৮২৪৪। এসএমএসে অভিযোগ জানাতে হবে এই নম্বরে: ৯০৭৩৩০০৫২৪। থাকবে ই-মেল আইডি ([email protected])। ডিএম, এসপি-রা এই কাজে নোডাল অফিসার নিয়োগ করবেন।

আমাদের এই ওয়েবসাইট এর সাথে থাকুন, এই বিষয়ে আপডেট এলে আমরা আপনাদের জানিয়ে দেবো।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.