মজার জোকস – Bengali Funny Jokes

নমস্কার বন্ধুরা আমি শান্তনু আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক ভালোবাসা ও স্বাগতম আমার এই পেজ এ। আশা করবো আমার প্রত্যেক লেখা আপনাদের অনেকটাই উপকার করতে সাহায্য করবে বা আশা করবো ভালো লাগবে আপনাদের। আপনাদের সকলের সুস্থতা কামনা করি। আমি চেষ্টা করবো আপনাদের সাথে বা আপনাদের পাশে থাকতে। বন্ধুরা আমরা সবাই মানব জীবনে দুঃখ আর সুখ এই নিয়েই বেঁচে থাকি বা এইসব নিয়েই কিন্তু জীবন। কখনো কারোর মনে দুঃখ আসে আবার কখনো কারণ মনে সুখ আসে। একটা কথা আমরা সবাই জানি যে দুঃখ আসলে সুখ এক না একদিন আসবেই আর ঠিক তেমনি দুঃখও একদিন আপনার দরজায় করা নাড়বে। আমাদের জীবনে এমন অনেক কথা বা অনেক জিনিস আছে যেটা আমাদের দুঃখ থেকে সুখে পরিণত করে থাকে, আবার এমন অনেক জিনিস আছে যেটা সুখের থেকে দুঃখে পরিণত করে থাকে। কিন্তু আমরা কেউই কখনোই দুঃখ কে চাই না সুখকেই চাই। আর সেটার কথা চিন্তা করে আজকে আমাদের এই বাংলা জোকসের কিছু ডোম ফাটানো হাসির সোমবার নিয়ে এসেছি আপনাদের কাছে। আর দেরি না করতে সরাসরি চলে যাবো বেশ কিছু  চটপটি দম ফাটানো হাসির ও বিভিন্ন ভালো ভালো জোকস নিয়ে।


বাংলা Jokes – Mojar Joks

1. প্রত্যেক পুরুষ ভাবে তাঁর বৌ হবে “মিস ইউনিভার্স ” এর মতো সুন্দরী, আর তাঁর ব্যবহারটা হবে “কাজের মাসীর” মতো….!!

2. প্রত্যেক নারী ভাবে তাঁর স্বামী রোজগার করবে “মুকেশ আম্বানীর” মতো, আর তাঁর ব্যবহারটা হবে “মনমোহন সিং” এর মতো…..!!

3. ম্যাজিস্ট্রেট : ২০ টাকা পকেট মারার জন্য তোমাকে একশ টাকা জরিমানা দেওয়া হল। পকেটমার : আমার কাছে মাত্র ২০ টাকা আছে, স্যার। বাকি টাকা এক্ষুনি এনে দিতে পারি, কিন্তু কিছুক্ষণের জন্য ছাড়তে হবে।

4. এক কিপটে গেছে চিরুনি কিনতে। কিপটে: ভাই সাহেব, আমার একটা নতুন চিরুনি দরকার। পুরোনোটার একটা কাঁটা ভেঙে গেছে..। দোকানদার: একটা কাঁটা ভেঙে গেছে বলে আবার নতুন চিরুনি কিনবেন কেন? ওতেই তো চুল আঁচড়ে নেওয়া যায়। কিপটে: না রে, ভাই, ওটাই আমার চিরুনির শেষ কাঁটা ছিল যে !

5. ১ম চাপাবাজঃ  আমি এত গরম চা খাই যে, কেতলি থেকে সোজা মুখে ঢেলে দেই!

   ২য় চাপাবাজঃ  কি বলিস! আমি তো চা-পাতা, পানি, দুধ, চিনি মুখে দিয়ে চুলোয় বসে পড়ি!

6. তিন বন্ধু ঘুম থেকে উঠে একজন আরেকজনকে স্বপ্নের কথা বর্ণনা করছে।

প্রথম বন্ধুঃ “জানিস আমি স্বপ্নে দেখলাম, মরুভুমির সব বালি সোনা হয়ে গেছে আর আমি সেগুলোর মালিক হয়ে গেছি।”

দ্বিতীয় বন্ধুঃ “আমি স্বপ্নে দেখলাম আকাশের সব তারা স্বর্ণমুদ্রা হয়ে গেছে আর আমি তার মালিক হয়ে গেছি।”

তৃতীয় বন্ধুঃ “আমি স্বপ্নে দেখলাম এতো কিছু পেয়ে তোরা খুশিতে হার্টফেল করেছিস আর মরবার আগে আমাকে তোদের সব সম্পদ উইল করে দিয়ে গেছিস।”

7. ছেলে : বাবা তুমি অন্ধকারে লিখতে পারো?
বাবা : পারি। কি লিখতে হবে?
ছেলে : বেশি কিছু না বাবা। শুধু আমার স্কুলের রিপোর্ট কার্ডে একটি স্বাক্ষর দিলেই হবে।

8. বিয়ের পর শশুরবাড়িতে নতুন বউকে

শাশুড়ি বলছে: মা আজ থেকে তুমি এ বাড়িরই একজন সদস্য। আমার
মেয়ে তুমি, আমাকে তুমি মা ডাকবে।
নতুন বউ : আচ্ছা মা।
সারা দিনের কাজ শেষে জামাই বাসায় আসছে কলিংবেল বেজে উঠলো।

শাশুড়ি : এই কে এলো, দেখোতো বউ মা ?
নতুন বউ : মা! মা!! ভাইয়া এসেছে।

9. দাদা : তার নাতীকে বলছে, যা পালা তাড়াতাড়ি তুই আজকে স্কুলে যাস নাই তাই তোর
টিচার বাড়িতে আসছে। নাতী : আমি পালাবো না, তুমি বরং পালাও কারণ আমি স্যারকে বলেছি আমার দাদা মারা গেছে তাই স্কুলে যাইনি।

10. বাবা : আজ স্কুলের শিক্ষক কী বললেন?
বিল্টু : বললেন, তোমার জন্য একজন ভালো অংকের টিউটর রাখতে।
বাবা : মানে?
বিল্টু : মানে তুমি হোমওয়ার্কের যে অঙ্কগুলো করে দিয়েছিলে সব ভুল ছিল।

আরও পড়ুন 

বাংলা জোকস – Bengali Jokes



Comments are closed.