রোগা হওয়ার উপায় – Roga Howar Sohoj Upay

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন এই গরমে ? জানি অনেকটাই খারাপ আছেন কি তাই তো ? আর সবার বাড়িতে তো আর এসি নেই আর এসি থাকলেই বা কি বাইরে তো র এসি পাবে না। যাইহোক আজকের বিষয়টা কিন্তু গরম বা এসি নিয়ে নয়। আজকের বিষয়টা রোগা হওয়া নিয়ে। আমি জানি আপনারা অনেকেই রোগা হওয়া নিয়ে অনেকটাই সমস্যার মধ্যে আছেন। আপনারা আপনারা অনেকেই ভাবেন যে দ্রুত স্লিম হওয়ার উপায় বা রোগা হওয়ার ডায়েট বা রোগা হওয়ার উপায়। কিন্তু  রোগা হতে চাওয়া মানেই একটা লম্বা ডায়েটের চার্ট মেনে চলা। আর দিনের পর দিন ঘাম ঝরিয়ে জিম। সে খুব কষ্টের। কিন্তু শরীরের খেয়ালও তো রাখতে হবে। ওজন বেড়ে গেলেও আবার মুশকিল হবে। হ্যাঁ খাওয়া না কমিয়েও রোগা হওয়া সম্ভব। দেখুন। আর শীতকালে মোটা হওয়ার প্রবণতা প্রায় অনেকটাই বেরে যায়। কারণ শীতকাল মানেই যে নো শরীর খারাপ, তাই নো চিন্তা। যত খুশি খাও আর আরাম করো। এছাড়া শীতকালে ঘাম যেহেতু খুব একটা হয় না, তাই কাজ করলেও খুব একটা রোগা হওয়া যায় না। কিন্তু জিমে ভর্তি হওয়া মানেই তো সেই কত টাকা খরচ। তাই যদি ঘরোয়া উপায় রোগা হতে পারেন তাহলে তো আর মন্দ হয় না?

অনেকেই অনেকক্ষণ না খেয়ে থাকেন। আর তারপর যখন খুব খিদে পেয়ে যায়, ব্যাস যা পারেন তাই খান। এতে ওজন আরও বেড়ে যায়। তাই ওজন কমানোর জন্য না খেয়ে থাকার কোন প্রশ্নই আসে না। এতে বরং শরীরে গ্যাস বা অন্যান্য সমস্যা হবার সম্ভাবনা থাকে। তাই পেট খালি একদম নয়। এতে ওজন তো কমেই না, বরং আরও শরীর খারাপ হয়। তাই ওজন কমাতে খান। কিন্তু খাবারও একটা নিয়ম আছে। রোগা হতে লেবু, চিকন হওয়ার দোয়া, রোগা হওয়ার সহজ উপায় মুভি

চিকন হওয়ার জন্য ব্যায়াম – চিকন হওয়ার খাদ্য তালিকা

1. যেদিন থেকে রোগা হওয়ার কথা ভাববেন সেদিন প্রথমেই কি কি খাবেন এবং কখন খাবেন তার একটা লিস্ট বানিয়ে নিন।

2. প্রচুর জল খান। ঘুম থেকে উঠেই দু গ্লাস জল খেয়ে নিন। সারাদিনে সম্ভব হলে গ্লাস মেপে জল খান। এতে জলটা বেশি খেতে পারবেন। জল শরীর থেকে ক্ষতিকর টক্সিন বার করে দেয়। এবং শরীরকে পরিষ্কার রাখে। যেটা শরীরে জমে থাকলে ওজন বাড়ে। এবং অন্যান্য ক্ষতিও হয়। তাই রোগা হতে আগে দরকার বেশি করে জলের। এটা রোগা ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার প্রথম শর্ত।

3. চিনি খাওয়া একেবারে ছেড়ে দিন। ১ চা চামচে মোট ১৬ শতাংশ ক্যালোরি থেকে থাকে। তাই চায়ে বা দুধে কখনওই চিনি দিয়ে খাবেন না।

4. সকাল শুরু করুন গ্রীন টি দিয়ে। রোগা হতে গ্রীন টির উপকারিতা মোটামুটি সবাই জানেন। এরপর একটা হেলদি ব্রেকফাস্ট করুন। তাতে প্রোটিন, ভিটামিন, কার্বোহাইড্রেট সবরকম উপাদান যেন থাকে। যেমন শসা, টম্যাটো এসব দিয়ে স্যান্ডউইচ, ডিমের সাদা অংশ, দুধ এসব খান। প্রতিদিন ফল খান। ভাজাভুজি খেতে বারণ করছি না, তবে খুব অল্প খান। হেলদি খাবার খান।

5. আর রাতের ডিনার হালকা করে করুন। চেষ্টা করুন নারকেল তেল দিয়ে রান্না করার। নারকেল তেল মেদ কমাতে দারুণ সাহায্য করে। মাঝে মাঝে খালি পেটে, অর্থাৎ ঘুম থেকে উঠে ১ কোয়া রসুন খান। এছাড়াও অন্যান্য মশলা যেমন, আদা, গোলমরিচ, ধনে, জিরে বেশি করে খান। এই মশলাগুলি, বিশেষত গোলমরিচ ওজন কমাতে দারুণ সাহায্য করে।

6. শরীরকে তো একটু খাটাতেই হবে। তাই রোজ একটু জগিং করুন। বাইরে যেতে হবে না, বাড়ির ছাদেই করুন। এর সঙ্গে হালকা একটু এক্সসারসাইজ। এটা পছন্দ না হলে, যদি আপনি নাচ জানেন তাহলে নাচ প্র্যাকটিস করুন।  বাড়ির কাজ করুন। এগুলো করলেই কাজ হবে। আর পার্টির মরশুমে কোনদিন খুব ফ্যাটি কিছু খাওয়া হলে, পরের দিন একদম হালকা খাবার খান। এবং ফুল দমে জগিং, এক্সসারসাইজ করে ফ্যাট ঝরিয়ে নিন। মোট কথা ফ্যাটকে শরীরে জমতে দেবেন না।

আরো পড়ুন – ওজন কমানোর খাবার তালিকা – Food To Loose Weight

7. সোডা শরীরের জন্য খুব ক্ষতিকারক। সোডা খুব বেশি ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। ওবেসিটির মত সমস্যাও হতে পারে সোডা থেকে।  কারণ এতে প্রচুর চিনি থাকে। ওজন কমাতে চিনিকে কিন্তু ভুলতেই হবে। মাংস একটু কম খেতে হবে। বিশেষত পাঁঠার মাংস। চিকেন চলতে পারে। রাতের খাবারটা তাড়াতাড়ি খেয়ে নিন। আর দুপুরবেলা ঘুমের অভ্যাস থাকলে, সেটা ত্যাগ করুন। এতে ওজন বাড়ে। যাই খানআস্তে আস্তে চিবিয়ে খান।

8. আর না খেয়ে থাকলে রোগা হবেন এটা কিন্তু খুব ভুল ধারণা। পেট ভরে খাবেন তো বটেই কিন্তু হেলদি খাবার খান। মুখ কুঁচকোবার কিছু নেই, মনের মত খাবার না খেয়ে থাকতে বলছি না। পার্টির মরশুমে একটু আধটু তো চলতেই পারে। তবে কথায় আছে না, অতিরিক্ত বেশি কোন কিছুই ভালো না। সেটা মাথায় রাখবেন। আর তাহলে এবার থেকে খান আর বিন্দাস থাকুন!

9. দিনের শুরু করুন হেলদি কোনও খাবার দিয়ে। যেমন সকালে ঘুম থেকে উঠে গরম জলের মধ্যে মধু এবং লেবু মিশিয়ে খেতে পারেন। এছাড়া যদি আপনি মধু লেবু মিশিয়ে গ্রিন টীও খেতে পারেন। এই খাবার খেলে অতিরিক্ত টক্সিন আপনার শরীর থেকে বেরিয়ে যাবে।

10. যদি আপনি নৃত্যশিল্পী নাও হন, তাহলে গানের সঙ্গে পায়ে তাল মেলান। ১০ মিনিট ধরে তাল মিলিয়ে দেখুন। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ৫৮ শতাংশ ক্যালোরি বার্ন করতে পারবেন।

11. শুধু সিদ্ধ খাবার কখনই খাবেন না। মশলা যেমন হলুদ, ধনে, জিরেগুঁরো ইত্যাদি মশলাগুলিকে কখনওই খাবার থেকে বের করে দেবেন না। কারণ এই মশলাই আপনাকে রোগা হতে সাহায্য করবে।

12. যখন ফোনে কথা বলবেন তখন একটা জায়গাতে বসে কখনওই কথা বলবেন না। সব সময় ঘুরে ঘুরে কথা বলুন। এইভাবে ১০ মিনিটে ৩৬ শতাংশ ক্যালোরি নষ্ট করতে পারবেন।

13. বাড়ির কাজ করুন। যেমন ঘর মুছলে সব থেকে বেশি ক্যালোরি নষ্ট করা যায়। রোগা হওয়ার জন্য এই পদ্ধতিতে রোগা হওয়া খুবই সহজ ব্যাপার। এর ফলে ৪২ শতাংশ ক্যালোরি নষ্ট করা সম্ভব।

শেষ কথা 

শেষ কথাবলতে আমরা জানি যে আমাদের অনেকেরই খুউব মোটা বা মোটা থেকে রোগা হবো কি করে সেটাই ভাবতে ভাবতে বা খাটতে খাটতে দিন সবার বা জীবন সবার। কিন্তু আমি বলছি আমাদের এই পোস্ট বা আমাদের এই লেখা তা পরে আপনি যদি একটু মনোযোগ সহকারে মেনে চলেন বেশি না ৯০ দিন আপনি কোনো ভীম ও রোগ হতে বাধ্য।ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।

Comments are closed.