ত্বকে অলিভ অয়েলের উপকারিতা – Olive Oil For Skin Complexion, Whitening

বন্ধুরা কেমন আছেন ? আশা করি সকলেই ভালো আছেন।বন্ধুরা আমরা সবাই অলিভ অয়েল এর কথা শুনেছি বা কম বেশি সবাই জানি।আজকে এই অলিভ অয়েল নিয়েই অসাধারণ কিছু ব্যাবহার নিয়ে অনেকটাই সাহায্য সম্পূর্ণ আলোচনা করবো।আশা করবো এই আলোচনা থেকে বা এই আলোচনার পর আপনারা অনেকটাই নানানসমস্যার থেকে মুক্তি পাবেন।। অলিভ অয়েলের উপকারিতা সম্পর্কে কমবেশি আমরা সবাই জানি। প্রতিদিনের জীবনে আমরা বিভিন্ন উপায়ে অলিভ ওয়েল ব্যবহার করে থাকি। রূপচর্চা থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য পরিচর্যা ও রান্নায়ও এর ব্যবহার অতুলনীয়। আপনি জানেন তো অলিভ অয়েল (Olive oil) দিয়ে রূপচর্চা করার সঠিক উপায় ? তাহলে আসুন জেনে নেয়া যাক রূপচর্চায় অলিভ অয়েলের দারুণ ৮ টি ব্যবহার সম্পর্কে। তা হলে আর সময় নষ্ট না করে চলুন শুরু করা যাক।


খাবারে অলিভ অয়েলের ব্যবহার ও উপকারিতা সম্পর্কে অনেকেই জানেন। কিন্তু আপনি জানেন কি রূপচর্চায় এড় সঠিক ব্যবহার সম্পর্কে? ত্বক চুলের সৌন্দর্য বাড়াতে দারুণ কার্যকরী এই অলিভ অয়েল। ওজন কমাতেও অত্যন্ত সহায়ক। জেনে নিন ৮টি সঠিক ব্যবহারবিধি।

শরীরে ও মুখের ত্বকে ম্যাসাজ করুন ( Face Body And Soul Massage & Skin Care )

হালকা কুসুম গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন, তারপর তুলাতে সামান্য অলিভ অয়েল লাগিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। ১০-১৫ মিনিট পর কুসুম গরম জলে তোয়ালে ভিজিয়ে তা দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন তারপর একটি শুকনো তোয়ালে দিয়ে মুখ মুছে ফেলুন। গোসল করার পর সামান্য জলের সাথে অলিভ ওয়েল মিশিয়ে নিন তারপর সারা শরীরে ম্যাসেজ করুন। দারুণ ময়েসচারাইজারের কাজ করবে।

ত্বকের বলিরেখা দূর করতে

বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে আমাদের কপালে, চোখের পাশে ও নিচে চামড়ায় হালকা ভাঁজ দেখা দেয়। এই বলিরেখা সরাতে ২ চামচ অলিভ অয়েলের সাথে সামান্য এলোভেরা (Elovera) অয়েল মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন।

চুলের সৌন্দর্যে

আপনি চুলের যত্নেঅ অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। একটি ডিম নিয়ে তাতে ২ চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে ভালমত ফেটিয়ে নিন তারপর পেস্টটি আপনার চুলে লাগিয়ে নিন। ২০-৩০ মিনিট পর হালকা কুসুম গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন আপনার চুল উজ্জ্বল হবে।

মেকআপের সময়

নারীরা যখন সাজসজ্জা করেন তখন অনেকেই ফেইস মেকআপ(Makeup) এর জন্য ফাউণ্ডেশন ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু আপনি যদি ফাউণ্ডেশন মুখে দেয়ার আগে তাতে ১-২ ফোঁটা অলিভ অয়েল মুখে দেন, তাহলে ফাউণ্ডেশন দেয়ার পর আপনার ত্বক খুব উজ্জ্বল দেখাবে। তবে এটা কেবল শুষ্ক ত্বকের জন্য প্রযোজ্য।

মেকআপ পরিষ্কার করতে

আমরা অনেকেই মুখ থেকে মেকআপ তুলতে রীতিমত ত্বকের সাথে যুদ্ধ করি। কিন্তু অলিভ অয়েল দিয়ে খুব সহজেই মুখের সমস্ত মেকআপ তুলে নেয়া যায়। তাই যখন মেকআপ তুলবেন তখন কটন বল নিয়ে তাতে সামান্য অলিভ অয়েল নিয়ে আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করুন, দেখবেন সমস্ত মেকআপ উঠে যাবে।

ঠোঁটের যত্নে (Lip Care)

লিপবাম, ভেসলিন তো আমরা অনেকেই ঠোঁটে ব্যবহার করি। কিন্তু এর বদলে অলিভ অয়েলও ব্যবহার করতে পারি। রাতে ঘুমানোর আগে পরিষ্কার তোয়ালে দিয়ে ঠোঁট পরিষ্কার করে তারপর ঠোঁটে অলিভ ওয়েল লাগান। তাছাড়া ঠোঁটে লিপস্টিক(Lipstick) লাগানোর আগেও সামান্য অলিভ অয়েল দিয়ে নিতে পারেন, ঠোঁট নরম থাকবে।

পায়ের যত্নে (How To Use Olive Oil On Legs)

পায়ের যত্নে অলিভ অয়েলের ব্যবহার অতুলনীয়। প্রতিদিনই পায়ের উপর আমাদের অনেক চাপ পড়ে, তাছাড়া অনেকেই হিল ব্যবহার করে থাকেন তখন পায়ে ব্যথা হয়। তাই আরাম পেতে ও পায়ের যত্নে ১ চামচ লবণ নিয়ে তাতে পরিমাণ মত অলিভ ওয়েল মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করুন ও পায়ে ম্যাসাজ করুন।

ওজন কমাতে (Reduce weight)

শরীরের ওজন(Weight) কমাতে আপনি অলিভ অয়েল খেতেও পারেন। সকালে নাস্তার আগে ২ চামচ অলিভ ওয়েল খেয়ে নিন, এতে আপনার হজম শক্তি বাড়বে। এবং নিয়মিত ব্যবহারে আপনার ওজন কমতে সহায়তা করবে।



Comments are closed.