বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা SMS – Happy Bijoya Dashami SMS

পুজো! এই একটা কথা বাঙালিকে জাগিয়ে তুলতে যথেষ্ট। সারা পৃথিবীতে এমন কোনো বাঙালি খুঁজে পাবেন না, যে পুজো নিয়ে উত্তেজিত নয়, বা পুজো শব্দটা শুনলেই তার মুখে একটা কান এঁটো করা হাসি ছড়িয়ে পড়েনা। আর সেই পুজোয় এখন আমাদের দোর গোড়ায়।যদি বুঝতে অসুবিধে হয়, তবে দুপুর-বিকেল নাগাদ এসপ্ল্যানেড বা গড়িয়া হাট কিংবা হাতিবাগান যেকোনো একটা জায়গায় পৌঁছে যান, পুজোর ভিড়ের একটা ছোট্ট ট্রেলার দেখতে পেয়ে যাবেন। আর কটা দিনই তো বাকি, জামা কাপড় কিনতে হবেনা। নাওয়া খাওয়া ভুলে নেমে পড়েছে কলকাতার রাস্তায় আনাচে কানাচে খুঁজে বের করছেন সেজদির জন্য পারফেক্ট শাড়ি আর ফুল কাকার জন্য ততধিক ফুল কাটা পাঞ্জাবি।  কিন্তু এই পুজো পুজো ভাবটাই ভালো বুঝলেন, সব বাঙ্গালীর এব্যাপারে এক মত. পুজো এসে গেলে আর কতই বা দিন ৪ তে দিন হয় হয় করতে করতে কেটে যাবে তারপর মা ছিল যাবেন শ্বশুর বাড়ি, আবার আমাদের শুরু হবে সেই এক থর বাড়ি খাড়া, খাড়া বাড়ি থর।  তবে আমাদের দশমী আছে, তার নেমন্তন্ন আছে, বিজয়া সন্মিলনীতে পাড়ার নাটক আছে।  আর আছে অনেক ভালোবাসা।

বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা SMS – Happy Bijoya Dashami SMS

এখন তো আর এই ভালোবাসা বাড়ি বাড়ি গিয়ে পায়ে হাত ছুইয়ে হয় না।  হয়তো মেজদিদি বিয়ে করে পারি দিয়েছে বিদেশ, চোর দাদাভাই এই স্বে ভালো একটা চাকরিতে জয়েন করেছে হায়দ্রাবাদ, আর বাড়ির ছোট্ট বনি পড়তে গেছে  সুদূর জার্মানী। তাদের জন্য এই মুঠোফোন ই একমাত্র রাস্তা।  এছাড়াও পাড়ার বিশে, ওবাড়ির পিসে, অফিসের বস সবাইকেই জানবার জন্য আমাদের কাছে থাকে কিছু ছবি, আর সেরম কিছু শুভেচ্ছা বার্তার ছবিই এখানে দেয়া হল যা আপনার বিজয়ের শুভেচ্ছা জানানোকে করে তুলবে সুন্দর ও সহজ।

1. বিসর্জনের সাজ। 

দশমীর এই সন্ধে বেলাসাঙ্গ হলো সিঁদুর খেলা,
মা এর ঘরে ফেরার পালা,
চোখের জল-এ বিদায় বলা ,
মা-এর হলো সময় যাবারআসছে বছর আসবে আবার.
!!শুভ বিজয়া!!

2. সব শেষে চলে যাওয়ার পালা। 

মহাপার্বন এর সমাপন,
দুঃখে ভরে উঠলো মন
সবাই মিলে বলো তবে,
আসছে বছর আবার হবে..
শুভ বিজয়া

3. বিদায় বেলায় 

বিসর্জনের ঘন্টা বাজে মা যে এবার যাওয়ার সাজে, 
বিসর্জনের ঘন্টা বাজে,
বলুক সবাই মুখর রবে, 
আসছে বছর আবার হবে.
*শুভ বিজয়ার প্রীতি ও শুভেচ্ছা*

4. সবাই যেন থাকে দুধে ভাতে। 

ভালো রেখো মা সবার মন কুর কুর বাজছে ঢাক, 
কৈলাস যে দিল ডাক
শুরুহবে সিঁদুর খেলা, 
মায়ের যে আজ যাওয়ার পালা
বোধন থেকে বিসর্জন, 
ভালোরেখো মা সবার মন…
*শুভ বিজয়া*

5. মনের মধ্যে ঢাকের আওয়াজ

রেখো আমায় নিজের মনে
আকাশ জুরে যাচ্ছে উড়ে সাদা মেঘের ভেলা. 
বিসর্জনের সময় হলো ফুরিয়ে এলো খেলা.

আসছে বছর পুজোর দিনে

 থাকব কোথায় কে যে জানে,
যেথায় থাক মায়ের সাথে 
রেখো আমায় নিজের মনে .
**শুভ বিজয়া**

6. একটা শেষ আর একটা শুরু। 

বিসর্জন মানে আবার আসবে ফিরে, 
খুশি থাকুক সর্বদা তোমায় ঘিরে.
দশমীর আত্মীয়তা, একটু মিষ্টি মুখে.. 
সবাইকে জানাই শুভ বিজয়া, সবাই থেকো সুখে
ঢাকের আওয়াজ মিলিয়ে গেল, পুজো হলো শেষ…

প্রাণে শুধু জাগিয়ে রেখোএই খুশির রেষ
**শুভ বিজয়া**

7. পুজোর শেষ দিন। 

পঞ্চমীতে খুশির আমেজ, ষষ্ঠীতে বোধন, সপ্তমীতে নাচা নাচি, অষ্টমীতেভজন,
নবমীতে ঘুরে ফিরে হাপিয়ে লোকজন, দশমীতে বিদায় সুরে কাঁদে সবার মন.
**শুভ বিজয়া**

8. সিঁদুরে রঙে সমাপন। 

উত্সবের আজ শেষ বেলা, শুরু হবে সিঁদুর খেলা, মনের মাঝে রেখে মা কে,বিদায়ের সুর বাজবে ঢাকেএটা আমাদের নতুন ধারা. এসেমেস-এ বিজয়াসারা **শুভ বিজয়া**

9.  মা চললেন বাড়ি। 

রাজপথ থেকে অলি গলি
মা বলছেন এবার চলি 
আবার আমি আসবো ফিরে
থাকিস তোরা শান্তির নীড়ে
মোবাইল যুগের এটাই ধারা
এসএমএস আবিজয়া সারা।
**শুভ বিজয়া**

10. পুজোর আমেজ। 

 

সাঙ্গ হলো পুজোর বেলা, আজ মায়ের যাবার পালা,
আসছে বছর আবার হবে, মনে তে এই আসা রবে,
শুরু হলো সিঁদুর খেলা, বিজয়া সারব এই বেলা,
তাই আমার বিশেষ ধারা, এসেমেস এ বিজয়া সারা ,
!!শুভ বিজয়া!!

শেষ কথা 

পুজো পুজো ভাবতেই ভালো লাগে, পুজো এসে গেলে আর বেশিদিন থাকেনা। তাই এই কটা দিনের আনন্দের স্মৃতি নিয়েই আমরা সারাটা বছর কাটাই। আর ওই যে কথায় আছে যার সব ভালো তার শেষ ভালো এও তাই।  আর এই শেষ টুকুই মধুর করবার চেষ্টাই আমরা করলাম এখানে।

ছবি সৌজন্যে – অমর্ত্য সাহা। 


Comments are closed.