দূর্গা পূজার শুভেচ্ছা বার্তা – Happy Durga Puja SMS

বিদেশে যেমন ক্রিসমাস, তেমনই আমাদের অর্থাৎ বাঙালিদের  সারা বছরের সবথেকে আনন্দের সময়।  বাঙালি পৃথিবীর যে কোনেই  না কেন, সারা  জন্যি  . কলকাতাতে তো  রাজ্যে দেশে  বাইরেও মহা সমারোহে পুজো হয়।  কলকাতার থেকেই যায় পুজোর সমস্ত  ঠাকুরের প্রতিমাও যায় এই শহর থেকেই। প্রবাসী বাঙালিরা দেশ হেকে  কিন্তু পুজো থেকে না। পুজোর সময় আমরা সকলেই  সময় কাটাতে।  পরিবার প্রিজন, বন্ধু বান্ধব আরো  নানান মানুষ।  সবাইকে নিয়ে আমাদের এই উৎসবের আমেজ।  এই আমেজ কে বাড়িয়ে তুলতে এখানে রইল বেশ  পাঠাতে পারেন আপনার বন্ধুদের।

দূর্গা পূজার শুভেচ্ছা বার্তা – Happy Durga Puja SMS

1. ঢ্যাঙ কুড়া কুড় !

কুমোরের তুলি হলো খালি,
তৈরি হলো ঢাকি।
এবার পূজোয় মাগো যেন
আনন্দেতে থাকি।
*** হ্যাপি দুর্গা পূজা ***

2. এসেছে শরৎ, হিমের পরশ লেগেছে হওয়ার পরে। 

শরৎকালের রোদের ঝিলিক,
শিউলি ফুলের গন্ধ।
মা এসেছে ঘরে তাই,
মনে এতো আনন্দ।
*** হ্যাপি দুর্গা পূজা ***

3.  পুজোর কটা দিন। 

শরৎ সকাল হিমেল হাওয়া,
আনমনে তাই হারিয়ে যাওয়া।
কাশফুল আর ঢাকের তালে,
শিউলি দোলে ডালে ডালে।
মা এসেছে বছর ঘুরে,
পূজোর হাওয়া তাই জগৎ জুড়ে

4. ঢাকের বাদ্যি। 

এসেছে পূজো,
বেজেছে ঢাক।
অফিসের ডাক,
নিপাত যাক।
শভ দূর্গা পূজা 

5. শিউলি ফুলের গন্ধে মাতোয়ারা। 

বাতাসে শিউলি ফুলের গন্ধ,
আকাশে মেঘের ভেলা।
ওয়ার্ক স্টেশনে আমার এবার।
কাজ থামাবার পালা!
শুভ দূর্গা পূজা 

6. পুজোর ডাক। 

আসছে পূজো, বাজছে ঢাক!
তোরা সবাই ভালো থাক!
শুভ দূর্গা পূজা 

7. আগমনীর সুরে সুরে।

ঢাকের আওয়াজ ঢাই কুর কুর
শোনা যায় ঐ আগমনীর সূর।
মায়ের এবার আসার পালা
শুরু হলো মজার খেলা।
তাই নিয়ে এই সুখি মন
জানাই আগাম অভিনন্দন।
হ্যাপি পূজা 

8. হিমেল হাওয়ার পরশ। 

হিমের পরশ মনে জাগে,
সবি আজ নতুন লাগে।
মা আসার খবর পেয়ে,
বনের পাখি উঠলো জেগে।
শিশির ভেজা নতুন ভোরে,
মা এসেছে মর্তলোকে।
-শারদীয় অভিনন্দন

9. শরতের স্রোতে ভাষা দিন গুলি। 

শিশিরস্নাত ভোরের বাতাস…
ঝলমলে রোদ খুশীর আভাস…
রাত শেষের চাদের আলো…
পূজা আসছে জানিয়ে দিলো।
হুল্লোড় আড্ডা প্রেম অবকাশ,
দুহাত দিয়ে ডাকছে আকাশ।
*** হ্যাপি পূজা ***

10. পুজোর ঢাকে পড়ল কাঠি, দিন-রাত জমজমাটি। 

ঢাকেতে পরেছে কাঠি,
পূজো হবে ফাটাফাটি।
পূজো পূজো কত আশা,
ইচ্ছে পূরণের অভিলাশা।

শেষ কথা 

পুজো আমাদের জোবনে খানিকটা অবসরের মত।  স্কুলে পড়া কালীন বাচ্চারা যেমন গরমের ছুটি পে, বড় হয়েছে কর্ম জগতে আসার পর তো আমরা সেরম অবকাশ পাইনা, এই পুজোর ছুটিটাই আমাদের কাছে তখন হয়ে ওঠে খানিকটা ওই সামার ভেকেশন এর মত।  আর এই সময়ে আমরা সকলে সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে এক সাথে মঙ্গল কামনায় মেতে উঠি।  এই কটা দিনের জন্য রইল অনেক শুভেচ্ছা।

ছবি সৌজন্যে – কল্লোল ব্যানার্জী। 


Comments are closed.