Bengali Quotations in Bangla Font – বাংলা কোটস

“আমি বাংলায় হাসি বাংলায় ভাসি বাংলায় জেগে রই।” কথাটি প্রতুল মুখোপাধ্যায়ের। কথাটা যতটা সত্যি ততটাই অর্থপূর্ণ। আমরা যারা ডাল, ভাত, আলু পোস্ত, রবীন্দ্রনাথের ওপর জীবন কাটাই মানে আমরা বাঙালী জাতি আমাদের কান্না হাসি ,ঝগড়া ঝাটি সবটা বাংলাতে । আমাদের চিল চিৎকার থেকে শুরু করে প্রথম ডাক “ মা” আমাদের বাংলা ভাষাতেই। যে ভাষার জন্য এক সময়ের বাংলাদেশের মাটি রক্তে চুপচুপে হয়েছিল সেই ভাষাটার নাম বাংলা। যেই ভাষাতে কথা বলার জন্য বহু মানুষের  প্রাণ দিতে পারে সেই ভাষা প্রানের কাছাকাছি থাকবে সেটাই স্বাভাবিক। আমাদের বেঁধে বেঁধে থাকার ভাষা বাংলা , আমাদের আরো কাছাকাছি থাকার ভাষার নাম বাংলা। আমরা আবেগপ্রবণ, আমরা পাগলাটে, আমরা বাঙালী। বাংলা আমাদের মাতৃ ভাষা । সবার নিজের নিজের মাতৃ ভাষা থাকে তেমনই আমাদের বাংলা।

Bengali Quotations in Bangla Font – বাংলা কোটস

 কথা ,উক্তি , বানী এই কথা গুলো আমাদের শহরের দশ তলা হাই রাইজো যেমন জানে তেমনই আমাদের অলিগলি ফুটপাথও জাণে।বাসের ভিড়ে , ট্রেনের চাপে আমরা মাঝে মাঝে বলে উঠি , “উফ! দাদা কি দিলেন ।” এগুলো কোটস নয় কোটস সেগুলোই যেগুলো কিনা  জীবন দিয়ে শেখা জীবন দিয়ে বোঝা , বা যারা করে গেছেন যারা শিখিয়ে গেছেন, জীবনটা দিয়ে দেখে গেছেন তাদের কথাগুলো চিরন্তন সত্যের মতো থেকে যায়। তাদের বলে যাওয়া কথা কোটস হয়ে যায়।আর কোটস সেগুলোই মনখারাপের ওষুধ হয়ে যায় যেগুলো নিজের মনের ভাষাতে  বলা হয়। এই টিউশনের ব্যাগ ভারী করা , দুম দারাক্কা চার ছক্কা , ইংরিজি মিডিয়ামের যুগেও কিছু কথা আমাদের ট্র্যাফিক লাইটে দাঁড়িয়েও আমাদের ভাবায়। আমাদের চোখ মুছে কাঁধ শক্ত করে বলতে শেখায় “আমি হারবো না।”আমাদের লড়াই বলুন , কি জীবনে আমাদের পিঠ ব্যাথা হয়, ক্লান্তিতে তখনই  আমাদের লাগে কিছু এমনি মনভালোটি কোটস। যা কিছুক্ষণ পর পড়বেন কিন্তু তার আগে। এই কোটস গুলো খানিকটা আমাদের জীবনে খানিকটা কালবৈশাখীর মতো যখন গরমের জ্বালাতে জামা সেঁটে গেছে পিঠের কাছে তখনই আমাদের গায়ে লাগে বিকেলের হাল্কা হাওয়া আকাশ কালো করে বৃষ্টি নামে আশপাশ ঠান্ডা হয়। আমাদের শরীর শান্ত হয়, আর মন শান্ত হয় কোটসে। আপনার মন শান্ত করার জন্য রইল এমন কিছু bengali quotations.  দেখুন, পড়ুন, ভাবুন , শান্ত হন। আবার ফিরুন জীবনের রাস্তাতে ,আবার ফিরুন আলোর পথে, ভালোর পথে।

 

1. শান্তির মন্ত্র মিত্রতাই। 

“জগতে শত্রুতার দ্বারা কখনো শত্রুতার উপশম হয় না,
মিত্রতার দ্বারাই শত্রুতার উপশম হয়।”

– গৌতম বুদ্ধ।
আপনি একজনকে আঘাত করলেন,  সেও পালটা দিলো। তৃতীয়, চতুর্থ , এরম ভাবে চলতেই থাকলো। এই যুদ্ধ কোনোদিন থামবে কি? তাহলে চলতে থাকুক যুদ্ধও আর থামল না আমরাও শান্ত হলাম  না । সাদা পায়রার আসমান আর দেখা হলো না। তাই বাসে, ট্রেনে ধাক্কাধাক্কিতে লেগে গেলে, “ দাদা কি হচ্ছে ?” বলে তেড়ে না গিয়ে , উত্তর দিন মিষ্টি হাসিতে । ভুল আপনারও হয়। মানুষ আপনিও। একজন বন্ধু বানান, মন ভালো রাখুন।”

2. সাফল্যের পথ একমাত্র উদারতা। 

“উঁচুতে উঠতে হলে নিজের ভেতরের অহংকারকে বাইরে টেনে বার করে আ্নো, এবং স্বয়ং হাল্কা হয়।
 কারন তারাই উঁচুতে ওঠে যারা হাল্কা হয়।”

       -স্বামী বিবেকানন্দ
আমরা যখন কিছু পেয়ে যাই , আমাদের হাতে যদি অতিরিক্ত থাকে , আমরা ভাগ না করে  বরং এইটে প্রমাণ করার চেষ্টা করি আমাদের অতিরিক্ত আছে। এই অহংকার আমাদের শেষের শুরু আমরা লোভী হই। আমরা নিজেদেরকে  উদার করার বদলে নিজেদের কে করে ফেলি সংকীর্ণ। উন্নতি একমাত্র রাস্তা উদার হওয়া।

 

3. এ জীবন চলে গেলে আর পাবে না। 

“তুমি যাহা করে গেলে আসিয়া হেথায়,

চিত্রগুপ্ত লিখিয়া ভরিলেন খাতায়।
 তোমার বিচার করিবেন সেই বিধাতায়।
 তাহার কাছে ফাঁকি ঝুঁকি কিছু চলে না,
  বারে বারে আর আসা হবে না।”

    – লোকগান
আমাদের জীবন চালাই আমরা তার রাশ আমাদেরই হাতে ।আমরা কাজ করি তার উপরই  ফল নির্ভর করে। আমাদের সমস্ত কাজের ফল এই জীবনেই আমাদের পেতে হবে। আর জীবন কোন মোড়ে কি রেখে দিয়েছে আমাদের জন্য আমরা নিজেরাও জানি না। তাই একটা কথা জীবন বাঁচতে হবে  ইয়ব্বড় ভাবে।

4. পাগলামো চেনাবে  নতুন পথ। 


মুর্শিদ আছে দেশে দেশে,

এই জগতে কত বেশে রে,

ধরতে পারলে পাবিরে তুই,

ধরতে পারলে পাবিরে তুই,

বেহেশতেরি নাজরানা,

পাগল ছাড়া দুনিয়া চলে না।”

– লালন ফকির
সবকিছু কাজের সফলতার জন্য , মন থেকে সেই কাজ করা জরুরি। সেই কাজের জন্যই একটা এমন জায়গাতে নিজেকে নিয়ে যেতে হয় যেখানে সামান্যতম পাগলামো লাগে। এই পাগলামো মানুষকে কিছু পালটে দেওয়ার জেহাদে নাম লেখাতে সাহায্য করে এই পাগলামো নিয়ে যায়। আমাদের সফলতার দিকে। তবে অবাস্তবতা কোনোদিনই পাগলামো নয়।

 

5. তোমাতে শুরু তোমাতে শেষ সবটা। 

“তুমি সন্ধ্যার মেঘমালা , তুমি আমারও সাধেরও সাধনা,
              মম শূন্যগগণবিহারী
আমি আপন মনের মাধুরী মিশায়ে তোমারে করেছি রচনা
  তুমি আমারি, তুমি আমারি, মম অসীমগগণবিহারী।।”

– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
আমাদের জীবনের প্রতিটা পাতায় আমাদের লিখতে সাহয্য করেন  রবীন্দ্রনাথ। আমাদের রবি ঠাকুর , আমাদের প্রেমে বিরহে থাকেন সবটা জুড়ে। ঠিক একী ভাবে এখানেও প্রেমে থাকলে সেই মানুষকে যে এক আকাশ স্বপ্ন দেওয়া যায়  তাই যেন বারবার বুঝিয়ে দেন আমাদের রবি ঠাকুর।


6. সামনে দিন লড়তে হবে হাতে হাত রেখে। 

“দুর্গম গিরি, কান্তার মরূ, দুস্তর পারাবার

লংঘিতে হবে রাত্রি নিশিথে যাত্রীরা হুশিয়ার।

দুলিতেছে তরী, ফুলিতেছে জল, ভুলিতেছে মাঝি পথ,

ছিড়িয়াছে পাল, কে ধরিবে হাল, আছে কার হিম্মত?

কে আছ জোয়ান হও আগুয়ান হাঁকিছে ভবিষ্যত।
এ তুফান ভারী,দিতে হবে পাড়ি, নিতে হবে তরী পার।।”

– কাজী নজরুল ইসলাম।
জীবনযাত্রার পথ, তার যাত্রা বিপদ সংকুল এই পথে জাতি যখন সাহায্যের হাত চায়, যখন সেই আর্তিতে সারাদেশ বুঝতে পারেনা কোন পথে সে যাবে। তখন যুব সমাজকে আগুয়ান হতে হবে। তাতেই দেশ আর দশের লাভ।

 

7. তোমার সঙ্গে দেখলে পরে পাড়ার লোকে মন্দ বলে। 

” কলঙ্ক না লাগে যদি
   ভালোবেসে লাগে না ভালো।”

– লালন ফকির
ভালবাসা গোলাপের  মতো কাঁটা আছে তাতে, তাতে আছে লাল রং আর সুন্দর গন্ধ। তাই সবটা নিয়েই যখন তাই গন্ধ যেমন আছে তাতে , কাঁটা আছে তারও বেশি ।

8.  ভয় পেও না আগুনেতে। 

“আগুনকে যে ভয় পায়, সে আগুনকে ব্যবহার করতে পারেনা।”
– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
আগুন অর্থে আমাদের জীবনের ঝুঁকি। কিছু সময়ে ঝুঁকি না নিলে বা না নিতে জানলে আমরা সফল হতে পারি না। আগুন কে ভালোবেসে আগুন হয়ে যেতে পারলেই নিজে পোড়া যায় সূর্যের মতো।

9. সত্যি শোনা খুব জরুরি। 

“ যিনি উপদেশ দেন , অনুশাসন করেন, অসভ্যতা নিবারণ করেন। তিনি অসতের অপ্রিয় হন এবং সৎ লোকের প্রিয় হন।”
– গৌতম বুদ্ধ।
আজকালের সমস্যা হল আমরা অপ্রিয় কথা বলা লোক গুলোকে দূর করি জীবন থেকে। তবে যিনি সত্যি বলেন যিনি আমাদের সামনে আমাদের খারাপ গুলো আনেন তারা জীবনে দরকারি মানুষ আমাদের।

10. স্বাধীনতা ছিনিয়ে নিতে হয়। 

” যে নিজে স্বাধীনতা দিতে প্রস্তুত নয়, সে কোনোদিন স্বাধীনতা পাইবার যোগ্য নহে।
    দাসেরা শক্তি চায় অপরকে  দাস করিয়া রাখিবার জন্য।”

-স্বামী বিবেকানন্দ
মানুষ স্বাধীনচেতা পাখির মতো উড়তে পারে । সে অধিকার তাকে ছিনিয়ে নিতে হয়। আর জীবন দিয়ে চিনতে হয় কে বা কারা তা দিতে চায় না। তাদের বিরুদ্ধে লড়াই থাকে জানকবুল।

শেষ কথা 

মাঝ দরিয়া তে  তরী যখন টলমল যখন ভিড় আমাদের একলা করে, আমাদের খুশি হাসি চিৎকার সবের জন্য বাংলা ভাষা।  আর সেই ভাষাই আমদের জীবন বদলানো ,প্রেমের, জীবনের মুহুর্তের বহু গল্প বলে যায়। আমাদের মাথা তুলে শেখায় বাঁচতে আমরা পথ চলি, পথ চলার আনন্দে। আমরা সেই কথা গুলো থেকে শিক্ষা নি যা বহু মানুষের জীবন বদলেছে। এবার তা আমাদের নিজের ভাষা ,বাংলা ভাষাতে। তাই হাসুন, কাঁদুন, ভাসুন, চালিয়ে যান জীবন বাংলাতে। তাই আপনার জন্য থাকলো এই সব bangla quotations।

লেখক  – রাহুল পাঠক 


Comments are closed.