ফিরে দেখুন আপনার ছেলেবেলা এই সাহিত্যিকের জন্মদিনে

 

গঙ্গা রামকে মনে আছে?  আর কাঠ বুড়ো? কিম্বা কাকেশ্বর কুচ কুচ? এরা হল বাংলা দেশের শিশু সাহিত্যিক দের মধ্যে অন্যতম বিখ্যাত সুকুমার রায়ের সেরা বইগুলির সেরা কিছু চরিত্র, যারা এখনো পর্যন্ত যে কোন বাঙালীর কাছে হাস্যরসের অন্যতম উৎস। সেই সুকুমার রায়ের আজ জন্মদিন। বাংলার আরও এক বিখ্যাত সাহিত্যিক উপেন্দ্র কিশোর রায়চৌধুরির জ্যেষ্ঠ সন্তান সুকুমার রায় বরাবর ছিলেন সাহিত্য মনস্ক, ও তার ছেলেবেলায় ছিল রবীন্দ্র নাথ ঠাকুরের সহচর্যে ও তার বাবার সাহিত্যমনস্কতার প্রছন্ন আসকারায় বেড়ে ওঠা কবির ভাবনার বাঁধ কোনোদিনও থেমে থাকেনি। বেশ কম বয়েস থেকেই তাঁর লেখা শুরু হয়, এবং বরাবর তাঁর লেখায় ছিলো এক অদ্ভুত কল্পনা, স্বপ্ন আর সত্যির মিশ্রণ।

 

সূর্য সেন ষ্ট্রীটের সিটি কলেজিয়েট স্কুল থেকে পড়ার পর তিনি প্রেসিডেন্সী কলেজ থেকে পাশ করেন এবং, কবি ইংল্যান্ডের স্কুল অফ ফোটো এনগ্রেভীং অ্যান্ড লিথোগ্রাফি থেকে ব্লক প্রিন্টিং নিয়ে পড়াশোনা করেন; তিনি এবং তাঁর ছোটো ভাই সুবিনয় রায় একসাথে তাঁর বাবার প্রতিষ্ঠিত ইউ রায় এন্ড সনস এর কাজ করেন। তার সাথে সাথে চলতে থাকে তার সাহিত্য চর্চা, হ য ব র ল, খাই খাই, সন্দেশ পত্রিকা, আবোল তাবোল এই সমস্ত নানান কালজয়ী রচনা তিনি প্রকাশ করতে থাকেন যা আজও বাঙালী মানুষের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়।

তিনি মণ্ডা ক্লাব নামের একটি ক্লাবের পতন করেন, যা প্রত্যেক সপ্তাহে তার ই বৈঠক খানায় বসত; এখানে কলকাতার সমস্ত বিখ্যাত লেখকরা থাকতেন, এবং তাদের মধ্যে নানান আলোচনা চলত যে কোন বিষয়ে, যে কোন দেশের। এখানে আগত সমস্ত মানুষের তাদের নিজেদের মতামত জানানোর সমস্ত অধিকার ছিল। এ ছিল এক সব পেয়েছির দেশ। বাংলা সাহিত্য জগতে এমন হাস্যরস সৃষ্টিকারী সাহিত্যিক আর নেই, তার চলচিত্রচঞ্চরি সারা পৃথিবিতে লিউইস ক্যারলের আলিস ইন ওয়ান্ডারল্যান্ডের সমকক্ষ হিসেবে জায়গা পায়। বঙ্গ দেশের এ এক অবিস্মরণীয় সাহিত্যিক।


Comments are closed.