Authentic Bengali Restaurant in Kolkata – কলকাতায় খাওয়া দাওয়া

বাঙালী মাত্রেই ভোজন রসিক, তাই স্বয়ং সত্যজিৎ রায়ও বলে গেছেন, “আহারের এতো বাহার কেবল বাংলাদেশেই দেখা যায়।” সঠিক অর্থেই রান্নার বাহারে বাংলার জুড়ি সারা ভারতবর্ষে মেলা ভার। কলকাতা- “সিটি অফ জয়”- এর পরিচয় সারা বিশ্বে মিষ্টির জন্য হলেও বাঙালী খাদ্য তালিকায় টক, ঝাল, নোনতা, মায় তেতোরও বিরাট সম্ভার। ইলিশ ভাপা আর চিংড়ীর মালাইকারি তো এখন বেশির ভাগ পাঁচতারা জায়গায় পাওয়া যায়। তবে শুধু  ঘরের না, বাইরের বাঙালী রান্না অর্থাৎ কলকাতার রাস্তায় আমরা সাধারণত যা দেখে থাকি তাও স্বাদের পরিমাপে কিছু কম নয়। মায়ের শুক্ত আর চচ্চড়ির সাথে পাড়ার মোড়ের রোল-চাউমিনের দোকানও সমানে সমানে টক্কর দেয়। আর আপনি যদি কলকাতা সফরের কথা ভাবছেন তবে এরকমই কিছু খাওয়ার, যা হয়তো রাস্তার মোড়ের দোকান বা বহু পুরনো কিছু বিখ্যাত দোকানে পাওয়া যায়, অবশ্যই চেখে দেখতে পারেন। হলফ করে বলা যায়, এই স্বাদ ছাড়া কলকাতাকে চেনা অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। আসুন দেখে নি সেইরকম কিছু জায়গা যেখানে গেলে আপনি পাবেন কলকাতাকে আপনার জিভের ডগায়। 

Authentic Bengali Restaurant in Kolkata – কলকাতায় খাওয়া দাওয়া

 

1.  কে সি দাসের রসগোল্লা (K. C Das)

সারা ভারতবর্ষের কাছে কলকাতা আর রসগোল্লা দুটি শব্দই প্রায় এক ই অর্থ বহন করে। কলকাতা এসে রসগোল্লা না খাওয়া কতকটা আগ্রা গিয়ে তাজমহল না দেখার মতই। নরম ছানার বল, মিহি মিষ্টি রসে ভরা;  ঐ  নইস্বরগিক স্বাদ না পেলে জীবনে একটা বিরাট সুখ না জানা থেকে যায়, আর কলকাতা তো  অবশ্যই আজনা থেকে যায়। কলকাতায় রসগোল্লার সেরা ঠিকানা হল কে সি দাসের দোকান। শ্রী নবিন চন্দ্র দাস হলেন রসগোল্লার আবিস্কারক, আর তার উত্তরসূরিদেরই এই দোকান, যেখানে সারা কলকাতার মধ্যে উৎকৃষ্ট মানের রসগোল্লা আপনি পাবেন তা বলাই বাহুল্য।

2. পিটার ক্যাটের চেলো কাবাব (Peter Cat)

ব্রিটিশ কলকাতার আবহাওয়া, আর অ্যাংলো ইন্ডিয়ান জীবন-ধারার প্রচ্ছন্ন ছাপ রেখে তৈরি রেস্তোরাঁ পিটার ক্যাট, কলকাতার কাবাব-প্রেমিদের প্রথম পছন্দ। আপনি যদি কলকাতা আসেন প্রথম বার বা অনেকদিন বাদে তবে পিটার ক্যাটের চেলো কাবাব দিয়ে  “খোকাবাবুর প্রত্যাবর্তন” এর আনন্দ উপভোগ করতেই পারেন।; ধোঁয়া ওঠা গরম রাইস, সঙ্গে চিকেন ও মাটন কাবাব আর ওপরে কিছু কুচো সব্জি আর একটা ডিমের পোচ, সব মিলিয়ে জিভের মধ্যে স্বাদের বিস্ফোরণ। কলকাতা সফরে আপনার  বাকেট লিস্টে পিটার ক্যাট কে রাখবেন এর আন্তর্জাতিক স্বাদ ও আবেদনের জন্য।


Comments are closed.