Offbeat Restaurants in Kolkata – কলকাতার সেরা 10 টি নতুন রেস্তোরাঁ

কলকাতায় আনাচে কানাচে ছড়িয়ে আছে নানান স্বাদের নানান সাজের রেস্তোরাঁ। সবার আলাদা নাম ও আলাদা পরিচিতি, এবং সবার নিজের নিজের আলাদা আলাদা মেনু। যার যেরকম পছন্দ সে সেরকম রেস্তোরাঁয় যায়। কলকাতায় ভিষন বিখ্যাত ও পুরনো নানা রেস্তোরাঁর মত আছে প্রচুর অজানা রেস্তোরাঁ, কিছু পুরনো কিছু নতুন। এদের মধ্যে অনেক গুলি আছে যাদের খাওয়ার, ডেকর সবই দুর্দান্ত কিন্তু খুব কম লোকই জানে এদের সম্বন্দে। একেবারে খাঁটি কলকাতিয়া না হলে এই সমস্ত জায়গা চেনা, ও এখানে যাওয়ার ঘটনা অন্যান্য মানুষের জীবনে খুবই বিরল । তবে কলকাতার স্বাদ গন্ধের বৈচিত্র্য জানতে চাইলে যেতে হবে এই সমস্ত রেস্তোরাঁয় যেখানে গেলে পাওয়া যাবে অনন্য সমস্ত খাওয়ার আর দারুন শান্ত পরিবেশ। এমনই কিছু রেস্তোরাঁর নাম এখানে দেওয়া হল।

Offbeat Restaurants in Kolkata – কলকাতার সেরা 10 টি নতুন রেস্তোরাঁ

কলকাতার বুকে প্রচুর অসাধারণ খাওয়ার জায়গা আছে কিছু পুরনো ও কিছু নতুন। নতুনদের মধ্যে এমন অনেক আছে যারা নতুন হওয়ার ফলে তৈরি করেছে একেবারে আনকোরা আবহাওয়া। আর এই সমস্ত নতুন রেস্তোরাঁর খোঁজ ই রইল এখানে যেখানে গেলে আপনার মন মাথা সব হয়ে ওঠে শান্ত ও মনোরম।

1. HANGLATHERIUM (হ্যাংলাথেরিয়াম, প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড)

A post shared by Shreya Roy (@shreya___roy) on

সুকুমার রায়ের অবিস্মরণীয় চরিত্র হ্যাংলাথেরিয়ামের নাম অনুসারে নামাঙ্কিত এই রেস্তোরাঁ সঠিক অর্থেই কলকাতা বাসীর হ্যাংলামির এক নম্বর ঠিকানা। বঙ্গালির অপূরণীয় খিদেকে স্বাগত জানিয়ে এই রেস্তোরাঁর নিতিবাক্য “খাই খাই কর কেন এস বস আহারে”, যথার্থ অর্থেই কলকাতার মানুষের খাই খাই এর নিবারণ ঘটায়। এখানকার অন্দর সজ্জায় একেবারে দেবাশীষ দেবের ধাঁচে আকা  কার্টুন সম্বলিত দেওয়াল আর স্তিমিত আলো, এখানে আসা যে কোন মানুষের মন ভালো করে দেবে। এছাড়া এখানকার লোভনীয় সমস্ত খাওয়ার তো আছেই, বাঙালী ও উত্তর ভারতীয় নানান আমিষ পদ এখানে অত্যন্ত জনপ্রিয়। সাউথ সিটি মলের উলটোদিকে  অবস্থিত এই রেস্তোরাঁ খুঁজে পেতে একটু সময় লাগলেও আশাহত হবেন না।

  • কি খাবেন-  মাটন হ্যাংলাবাড়ি, মাটন বিরিয়ানি, চিকেন টিক্কা মসালা, ফিরনি।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ৫০০ টাকা।
  • জনমত- “কলকাতার অন্যতম সেরা বিরিয়ানি ও মাটনের রান্নার ঠিকানা।”

2. THE LOVE ROOM (দ্য লাভ রুম, টালিগঞ্জ)

A post shared by Rubi (@rubiroy) on

আপনি কি কুকুর ভালোবাসেন? আপনার পোষ্য কে নিয়ে ভারি ঝামেলা কোথাও নিয়ে যেতে পারেন না। আর চিন্তা নেই কলকাতাতেই এমন একটি রেস্তোরাঁ আছে যা আপনার এই সমস্যার সমাধান করবে। টালিগঞ্জের দ্য লাভ রুম, এখানে আপনি সাথে নিয়ে যেতে পারেন আপনার পোষ্যকে, এবং দুজনে উপভোগ করতে পারেন অসাধারণ কিছু খাওয়ার, আর দারুন একটি পরিবেশ। বিল্ডিঙের ২ তলায় অবস্থিত এই রেস্তোরাঁ বেশ বিস্তৃত আর সুন্দর আলো হাওয়ার পরিবেশ, এখানে আপনার নিজের পোষ্য না থাকলেও অসুবিধে নেই, এখানে আছে অসংখ্য কুকুর ও বেড়াল, যেগুলি খোদ রেস্তোরাঁর মালিকের আপনি তাদের সাথেও সময় কাটাতে পারেন। সব মিলিয়ে দ্য লাভ রুম একটি অসাধারণ সুন্দর রেস্তোরাঁ যেখানে আপনি  ও আপনার পোষ্য কাটাতে পারেন খুব সুন্দর একটা সময়।

  • কি খাবেন- পেরি পেরি চিকেন, চকলেট, নাতেলা অয়াফেল।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ৮০০ টাকা।
  • জনমত- “কলকাতার প্রথম পেট ফ্রেন্ডলি রেস্তোরাঁ, এখানে এই জন্যি বার বার যাওয়া যায়।”

3. WOODSTOCK 1969 (উডস্টক ১৯৬৯, কালীঘাট)

বাঙালী মানেই সঙ্গীত প্রেমি আর কলকাতা বাসীর এই প্রেম কখনই রবীন্দ্র সঙ্গীত এ থেমে থাকেনি দেশি বিদেশি নানা ধরনের মিউজিক গান বাজনা আমরা বাঙালী পছন্দ করি ও চর্চাও হয় প্রচুর। আর   কলকাতা শহর বরাবরই বিভিন্ন ধরনের গান ও বিপ্লব, এই দুয়ের সাথে ভীষণ জোরালো সম্পর্ক, তাই ৭০ এর দশকের পৃথিবী বিখ্যাত উডস্টক মিউজিক ফেস্টিভ্যালের কথা জানেনা এমন মানুষ অন্তত পক্ষে কলকাতায় পাওয়া দুষ্কর। কলকাতার বুকে তারই অনুসরণে তৈরি হয়েছে রেস্তোরাঁ উডস্টক ১৯৬৯। এর অন্দর সজ্জা একটু অন্ধকারাচ্ছন্ন হলেও তা এর থিমের সাথে মিলে মিশে বেশ সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি করে। আর এখানকার খওয়ার ও অসাধারণ ভারতীয় ও অন্যান্য নানা বিদেশি রান্না এই রেস্তোরাঁ কে আরও জনপ্রিয় করে তুলেছে। উড স্টকের পর্ক ও মাটনের স্বাদে এক অন্য মাত্রা আনে।

  • কি খাবেন- বাটার বেয়ার, চিকেন ভুনি পাও, মকটেল।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ৬০০ টাকা।
  • জনমত- “খুঁজে পেতে অসুবিধে হলেও এখানকার প্রত্যেকটি রান্নার স্বাদ অসাধারণ।”

4. ECSTASEA (এক্সট্যাসি, সাদার্ন এভিনিউ)

A post shared by Shayeri Sarkar (@shayerisarkar) on


কলকাতার একেবারে দক্ষিণ ভাগে অবস্থিত এই রেস্তোরাঁ বাঙালীর মৎস প্রেমের জন্য একেবারে পেরফেক্ট। এখানে সি ফুড পাওয়া যায় যা আপনার জিভে করবে স্বাদ ও গন্ধের বিস্ফোরণ। ছোটো জায়গার মধ্যে হলেও এই রেস্তোরাঁ বেশ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন, এবং এর সার্ভিস ও অত্যন্ত ভালো। লেক রোডের সি সি ডির উলটো দিকে একেবারে ছোটো জায়গা হওয়ায় আপনার চোখ এড়িয়ে যেতে পারে যদি না ভালো করে লক্ষ্য করা হয়। কলকাতার বুকে এমন সুন্দর দেশি বিদেশি সি ফুড বানায় তাও এত কম দামে খুব কম জায়গাই আছে।

  • কি খাবেন- হানি চিলি স্কুইড, প্রন মোমো, ক্র্যাব মোমো।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ৬০০ টাকা।
  • জনমত- ” কলকাতার বুকে এত কম দামে এরম স্বুস্বাদু সী ফুড আর কোথাও পাওয়া যায় না।”

5. BOGLIN GAMES (বগলিন গেমস, কালীঘাট)

A post shared by Rahul Mazumdar (@loknarosh) on

রোজকার জীবনে অফিস বাড়ি বাড়ি অফিস করে থকে গেলে মনটা চায় একটু উষ্ণ কিছু, একটু মন ভালো করা কিছু। আর তেমনই একটি পরিবেশ আপনাকে দেয় কালীঘাটের কাছে অবস্থিত রেস্তোরাঁ বগলিন গেমস, এর অন্দরে ১০০র ও বেশি বোর্ড গেম সমন্বিত এই রেস্তোরাঁর ডেকর শুধু ইউনিক না এখানে থাকা একদল কর্মচারী যারা প্রত্যেক টেবিলে গিয়ে প্রত্যেক অতিথি কে যে কোন একটি বোর্ড গেম খেলতে সাহাজ্য করে। তবে এই রস্তরা শুধু ভালো সময় নয় ভালো খাওারেও বিশ্বাস করে। আর এখানকার দারুন সুন্দর ও স্বুস্বাদু বিশাল লম্বা একটি খাওয়ারের তালিকা যার মধ্যে ইউরোপিয়ান ড্রিঙ্ক ও মেন কোর্স গুলি বেশ জনপ্রিয়।

  • কি খাবেন- পেরি পেরি চিকেন বার্গার, গ্রিল ফিশ, গারলিক ব্রেড।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ৭০০ টাকা।
  • জনমত- “কলকাতার মধ্যে এক অনন্য রেস্তোরাঁ যেখানে গেলে আপনার মন পেট দুই ই ভরে যায়।”

6. TO DIE FOR (টু ডাই ফর, হাজরা)

A post shared by ToDieForKolkata (@todieforkolkata) on

দক্ষিণ কলকাতার সবথেকে ব্যস্ত এলাকা হাজরার একটি ছোটো গলিতে ঠিক ততটাই ছোটো একটি গ্যারেজকে বদলে বানানো রেস্তোরাঁ  যেখানকার প্রত্যেকটি প্লেটের মধ্যে আপনি চাখতে পারবেন এক টুকরো ইটালি। টু ডাই ফর, নামের সাথে মিল আছে আক্ষরিক অর্থেই এখানকার খাওয়ারের স্বাদের, সত্যি টু ডাই ফর। এই রেস্তোরাঁর ২২ বছর বয়সি মালিক মিঃ ঢনঢনিয়া  এর মেনুর ব্যাপারে বেশ প্যাশনেট। এখানকার বেকড আইটেম ও নানান রকমের পাস্তা বেশ জনপ্রিয়। এখানকার দারুন সুন্দর ডেকর, ছোটো গোছানো পরিসর আপনার বই পড়ার বা নিজের সাথে একটু সময় কাতাবার জন্য আদর্শ।

  • কি খাবেন- লাসাগ্না, পাম্পকিন র‍্যাভিওলি, ক্রিম ব্রুলে।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ২০০০ টাকা।
  • জনমত- “কলকাতার মধ্যে একটি ছোট্ট সুন্দর শান্ত ক্যাফে।”

7. THE WHISTLING KETTLE (দ্য হুইসলিং কেটল গোলপার্ক)

A post shared by Jahnavi Jha (@jay2vi) on

দার্জিলিং না গিয়েও দার্জিলিং এর স্বাদ, ভুয়ো নয় একেবারে সত্যি। ক্যাভেন্টারসের নথমূলের চায়ের স্বাদ ভালবাসেনা এমন বাঙালী খুব কম আছে। তবে জানেন কি, সেই স্বাদ আপনি এখন পেতে পারেন এই কলকাতায়। হ্যাঁ, নথমুলেরই বংশধর মিঃ সইলেশ সারদা কলকাতায় গোলপার্কের কাছে খুলেছে একটি স্টোর কাম ক্যাফে যেখানে আপনি পাবেন খাঁটি নথমুলের চায়ের স্বাদ, এছাড়াও এখানে পাবেন নানা দেশি ও বিদেশি চা ও কফি। তার সাথে আছে দারুন সমস্ত পাস্তা ও স্ন্যাক্স যা আপনার বিকেল কে করে তুলবে দারুন স্বুস্বাদু। এছাড়া এখানে প্রত্যেক সোম, বুধ, ও শুক্র বার পরিবেশিত হয় লাইভ মিউজিক। দ্য হুইসলিং কেটল কলকাতার বুকে এমন একটি ক্যাফে যেখানে গেলে এক বাঙালীর চা-তেষ্টা মেটে নানান দেশের চা দিয়ে নানান রকম চা দিয়ে, তার সাথে এদের নানা ফ্লেভারের কেকের তো জবাব ই নেই।

  • কি খাবেন- ভিয়েতনামিস কফি, পর্ক প্ল্যাটার, স্প্যাগেটি।
  • খরচ-  ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ৬০০ টাকা।
  • জনমত- “কলকাতার বুকে এক অসাধারণ রেস্তোরাঁ যার স্বাদের কোন তুলনা হয়না, আর এর ডেকর ও খুব সুন্দর।”

8. FUJI (ফুজি, সাদার্ন এভিনিউ)

কলকাতার বুকে ছোট্ট জাপান। আজ্ঞে হ্যাঁ। কলকাতার বুকে এমন সুন্দর সাজানো জাপানীস থিমের রেস্তোরাঁ  খুব কম আছে। আর এখানকার জাপানীস খাওয়ারের আইটেম এর লম্বা লিস্ট একে আরও পছন্দের করে তোলে তাদের যারা এই পূর্ব এশিয় দেশ গুলির খাওয়ার পছন্দ করে। এখানকার সাজ সজ্জা একেবারে খাঁটি জাপানি বাড়ির মত, এখানকার কর্মচারীরাও জাপানি নাগরীকদের মত পোশাক পরে থাকেন। সব মিলিয়ে ছোটো জাপান, যেতেই পারেন আপনার স্বাদের সাথে এক্সপেরিমেন্ট করার জন্য।

  • কি খাবেন- কুশিওয়াগে মরিয়াসে, ওয়াসাবি আইস ক্রিম, বুটা নেগিমা, কলকাতা মাকি।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ ১২০০ টাকা।
  • জনমত- “কলকাতার বুকে খাঁটি জাপানি খাওয়ার খাওয়ার সেরা ঠিকানা হল ফুজি।”

9. CRYSTAL CHIMNEY (ক্রিস্টাল চিমনি,, চাঁদনী চক)

A post shared by Triparna ???? (@triparna____) on

কলকাতার চাঁদনী চকের মধ্যে ই মলের সামনে অবস্থিত রেস্তোরাঁ ক্রিস্টাল চিমনি বেশ পুরনো একটি চাইনিস রেস্তোরাঁ। এদের খাওয়ার পরিমাণে ও গুণমানে দুয়েই দারুন। এখানকার খাঁটি চাইনিস মাছ ও মাংসের পদ গুলি অসাধারণ খেতে। বসার জায়গা অল্প হলেও এখানকার খাওয়ারের স্বাদে ট্যাঁ ঢাকা পরে যায়। চাঁদনী মার্কেটের ক্লান্তিকর ঘোড়া ফেরার পর এক দারুন গন্তব্য।

  • কি খাবেন- সাংহাই চিকেন, লাপচি কাই চিকেন, লে ফু ফিশ।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ৬০০ টাকা।
  • জনমত- “কলকাতার বেশ পুরনো ও দারুন এক রেস্তোরাঁ।”

10. THE SCOOP (দ্য স্কুপ, ডালহৌসি)

প্রিন্সেপ ঘাতের মধ্যে একেবারে গঙ্গার ধারে অবস্থিত এই রেস্তোরাঁর অবস্থান ও ভিউ অসাধারণ। এর দারুন সমস্ত আইস ক্রিম ও অন্যান্য স্ন্যাক্সের পসরা বেশ জনপ্রিয়।

  • কি খাবেন- গ্রিলড স্যান্ডুইচ,  চকো ব্রাউনি, আইস ক্রিম সানডে।
  • খরচ- ২ জনের জন্য খরচ প্রায় ৩৫০ টাকা।
  • জনমত- “গঙ্গার ধারে খাঁটি কলকাতার স্বাদের রেস্তোরাঁ।”

কলকাতার এই সমস্ত লুক্কায়িত রেস্তোরাঁ গুলি আপনাকে দিতে পারে দারুন চমক, আর হয়ে উথতে পারে আপনার সবথেকে পছন্দের গন্তব্য।

লেখক: পূজা বিশ্বাস।


Comments are closed.