Friendship Quotes in Bangla Language- বন্ধুত্ব নিয়ে বাংলা কোটস

স্কুল, কলেজ, অফিস, পাড়া- এই প্রত্যেকটা জায়গার সাথে আমাদের একটি মাত্র যোগসুত্র কী থাকে? বন্ধু। আমাদের জীবনের বিভিন্ন সময়ে, বিভিন্ন স্তরে আমাদের কিছু সঙ্গী থাকে তাদের মধ্যে কেউ কেউ আমাদের বন্ধু হয় আর কেউ কেউ আমাদের সঙ্গী ই থেকে যায়. কিছুক্ষনের সঙ্গ দেওয়া নেওয়া থেকে ধীরে ধীরে যখন আত্মার যোগাযোগ হয় ও আমাদের কাছে সেই মানুষ গুলি হয়ে ওঠে অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ, তখনি আমাদের জীবনের স্বাদ আম্ররা তাদের সাথে ভাগ করে নিতে পারি। আর জীবনের আনন্দ ভাগ করে নেওয়ার মধ্যেই লুকিয়ে থাকে সমস্ত রহস্য। যেভাবে বিখ্যাত অভিনেতা জনি ডেপ বলেছেন, ” In this life everyone is going to hurt you, you just have to find the one worth suffering for.”- আমাদের জীবনে বন্ধুদের আমরা  যতই  তাচ্ছিল্য করিনা কেন, ঝগড়া করিনা কেন বন্ধু ছাড়া আমাদের জীবন অচল।

Friendship Quotes in Bangla Language- বন্ধুত্ব নিয়ে বাংলা কোটস

বন্ধুত্ব আমাদের জীবনে একেবারে রান্নার মধ্যে নুনের মত, কারুর একটু বেশি আছে কারুর একটু কম; কিন্তু আছে. একেবারে নুন ছাড়া রান্না যেমন বিস্বাদ তেমনি বন্ধু ছাড়া জীবন ও বেশ বিস্বাদ। বন্ধুদের কোনো সংজ্ঞা হয়না, না ই তাদের কোনো রকম ফের হয়।  মানুষ হিসেবে আমাদের সঙ্গে যারা থাকে তাদের সম্পর্ক গত ভাবে নানান ভাগ থাকলেও আমাদের সাথে যে আত্মার যোগাযোগ তা একেবারেই নিজের হয়। এই বন্ধুত্বের উদ্যেশ্যেই কতগুলি সুন্দর কোট এখানে রইল , যা আপনি আপনার  ফেসবুকে বা হোয়াট্স আপে বন্ধুত্ব নিয়ে স্ট্যাটাস দিতেই পারেন।

1. বন্ধুত্বের কথা কবিগুরু ছাড়া আর কার কথা দিয়েই শুরু করা যায়।

মানুষের যে কোনো সম্পর্কের কথা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শব্দে যেভাবে মূর্ত করে তোলে, যে বন্ধুত্বের আমাদের সামনে একটি অবয়ব নিয়ে নেয়।  বন্ধু যেমন আমাদের জীবনকে  তেমনই বন্ধু বিচ্ছেদ আমাদের বিষম কষ্টে রাখে, সেই আকুতি যাতে আমাদের সখা আমাদের প্রাণের মানুষ ছেড়ে না যায় তারই এক অসামান্য উদাহরন কবিগুরুর এই গান।

“চিরসখা, ছেড়োনা মোরে  ছেড়োনা।
সংসার গহনে নির্ভয় নির্ভরে,
নির্জন সজনে সঙ্গে রহ। ”

2. বন্ধুত্বের দু-চার কথা।

বন্ধুত্ব নিয়ে আমরা মাঝে মাঝেই ২-৪ লাইনের ছোট্ট  পাই আমাদের ফেসবুকে বা হোয়াটস আপে, যেখানে খুব অল্প কথায় সুন্দর করে বন্ধুত্বের ভালোলাগার মোড়ক গুলো বুঝিয়ে দেয়া যায়।

“Bodhu mane govir rate hotath telephone ,
Bondhu mane kothar maje hariye jawa mon.
Bondhu mane hasi thatta joy, pora joy.
Bondhu mane osru felar nirob ashroy.”

3. খেলার মাঠের বন্ধুত্ব গুলো হয় সবথেকে সুন্দর। 

বন্ধুত্ব সম্পর্কে  নস্টালজিয়া আছে তাদের যারা নিজেদের পাড়ার জীবন কাটিয়ে এখন দায়িত্বের ঝুলি সঙ্গে নিয়ে অন্য কোথাও গিয়ে থাকেন, বাড়ি ছাড়া হয়ে, পাড়া ছাড়া হয়ে।   প্রিজন, খেলার মাঠ, রকের আড্ডা ছেড়ে; আর তাদেরই ভাবনা তা খুব সুন্দর করে তুলে ধরে চন্দ্রবিন্দুর এই গানটা।

“Aar ekbar jodi tomader dole
nao khelay,
Bondhu tomay e gaan shonabo
bikel belay…”

4. বন্ধুত্বের অনুপম ব্যাখ্যা। 

ওপরের প্ৰত্যেকটা শব্দ তাদের কাছে এক একটা গোটা স্মৃতির পাহাড়, যারা নব্বই এর দশকের কলকাতায় তাদের শৈশব বা কৈশোর কাটিয়েছেন। দুপুর রোদে মাঠে ঘটে করে বেড়ানো, বিকেল হলেই কোনো মতে বাড়ির লোকের চোখ এড়িয়ে বেরিয়ে পড়া, চোর পুলিশ, লুকোচুরি, ধরাধরি কিংবা নেহাতই কুমির ডাঙ্গা এই সমস্ত তাই খুশি ছিলাম আমরা। এই ছিলো আমাদের সব পেয়েছিস দেশ।  আর এই সময়েই তৈরী হতো সেই সমস্ত বন্ধুত্ব যা আজীবন থেকে যায়।

“রামধনু, ঝালমুড়ি, হাফ টিকেট, আব্বুলিশ
বিটনুন আর চুরমুরের গল্প বল
বন্ধু চল
বন্ধু চল… রোদ্দুরে…মন কেমন… মাঠজুড়ে…
খেলবো আজ ওই ঘাসে তোর টিমে তোর পাশে”

5. বন্ধুত্বের অনুগল্প। 

বন্ধুত্বের কোনো সংজ্ঞা হয়না, না ইটের কোনো রকম হয় , বন্ধুত্ব হয় বন্ধুত্বের মত, প্রত্যেকটা বন্ধুত্বের একটা আলাদা রূপ-রস-গন্ধ থাকে আর তাই দিয়েই হয় এক অনন্য গল্প প্রত্যেকটি বন্ধুত্বের।

“Bondhu mane duto ridoyer taan.
Bondhu mane misty oviman.
Bondhu mane sukh dukkher gan.
Bondhu mane dui ta jibon er ekta jeno pran”

6. বন্ধুত্ব মানে। 

আপনার আসল বন্ধু হল সে যে আপনার জ্বর এলে বলে, “জানিসতো আমার দাদু যখন মারা গেছিলো তখন এরমই হয়েছিলো।”

“Friendship is বৃষ্টির
মাঝে ফুটবলে পা,
Friendship is তুই মরলে খাওয়াতে ভুলিস না।”

7. ভাবী মা কে সমান হোতি হে। 

স্কুল জীবনের ক্রাশ আর তার চোখের চাহনিতে ক্র্যাশ করে চূড়ান্ত বাজে রেজাল্ট এ যার জীবনে হয়নি সে আর যাই হোক বন্ধু নয়।

“তোর মতো বন্ধু যেন
শত্রুরও না হয়,
ওর দিকে তাকাবিনা
ভাই
ওটা তোর বৌদি হয়।”

8. ক্লাসরুমি কথা। 

আবারো চন্দ্রবিন্দুর একটি অসাধারন গানের কটি লাইন যা বন্ধুত্ব কে বুঝিয়ে দেয় এক্কেবারে জলের মত করে।

“চেনা মুখ, ছুঁয়ে থাকা দৃষ্টি
এলোমেলো আড্ডা, চায়ের গেলাস
ঘুম ঘুম ক্লাসরুম, পাশে খোলা জানলা
ডাকছে আমাকে তোমার আকাশ ”

9. স্কুলবেলার বন্ধুত্ব গুলো একসময় বিষাদময় হয়ে ওঠে। 

স্কুল বেলার বন্ধুত্ব গুলো খানিকটা গ্রীষ্মের দুপুরের মত, ডিম বন্ধ করা গরমে কষ্ট থাকলেও একটা চাপা রোমাঞ্চ থাকে একান্ত করে নিজেকে খুঁজে পাওয়ার জন্য।

“দুপুরের খামোখা খেয়াল
ভাঙ্গা তাক পুরোনো দেয়াল
খুঁজে পাওয়া বই জানতে চায়
বান্ধবী আছে কে কোথায়
ধুলো লাগা চেনা বই সব
হাতরায় কেনা শৈশব
এক আকাশ ভর্তি অভিমান
কোনদিন গাইব না যে গান”

10. মহিনের ঘোড়াগুলি এখনো ছুটছে। 

বন্ধুত্ব সম্পর্কে কিছু বলতে গেলে মহিনের কথা না বললেই নয়, এই গানটির এই লাইন গুলি ভীষণ সুন্দর করে তুলে ধরে আমাদের বন্ধুত্বের মানে টা , যা আমরা খুঁজে মরি মানুষের মধ্যে। এই শব্দ গুলোই ছবি এঁকে দেয় কলেজের শেষ দিনের প্রতিশ্রুতি গুলো আর বয়েসের ফেরে দায়িত্বে নুয়ে পড়া ঘাড়ের ভাঁজে হারিয়ে যাওয়া বন্ধুত্ব গুলোকে।

“শহরের উষ্ণতম দিনে পিচগলা রদ্দুরে
বৃষ্টি বিশ্বাসতোমায় দিলাম আজ
আর কি বা দিতে পারি
পুরোনো মিছিলে পুরোনো ট্রামেদের সাড়ি
ফুটপাথ ঘেষা বেলুন গাড়ি
সুতো বাঁধা যত লাল আর সাদা
ওরাই আমার থতমত এই শহরে
রররেন্ড্রন তোমায় দিলাম আজ …”

শেষ কথা 

বন্ধুত্ব সম্পর্কে কিছু বলা আরম্ভ করলে তা শেষ করা যাবেনা।  তবে  না বললে বন্ধুত্ব সম্পর্কে বলা হয় না।বন্ধুত্ব হল আমাদের দুঃখের সাথী, আনন্দের ভাগিদার। বন্ধু বিনা জীবন পএকেবারেই সাদাকালো। আমাদের জীবনের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ও স্মৃতি বিজড়িত পরিস্থিতি গুলোয় আমাদের সাথে থাকে আমাদের বন্ধুরা। প্রথম প্রেম, প্রথম লেঙ্গি,প্রথম চাকরি, প্রথম কলেজ এই সমস্ত বিষয় আমাদের সাথে থাকে তারা। জীবনের বিভিন্ন পর্যায়ে বন্ধু হয় বিভিন্ন, আবার কেউ কেউ থাকে অভিন্ন; যে প্রথম থেকে শেষ অব্দি আমাদের সাথে থাকে। এই সমস্ত রকম দেখতে শুনতে বন্ধুদের বন্ধুত্বের কিছু বাংলা কোটস রইল আপনাদের জন্য।

Comments are closed.